রবিবার, ২৪ মার্চ ২০১৯, ১১:৩৯ অপরাহ্ন

প্রতি দিন পাঁচ মিনিট চেয়ারে বসার মতো করে দাঁড়িয়ে থাকার সুফল জেনে নিন

প্রতি দিন পাঁচ মিনিট চেয়ারে বসার মতো করে দাঁড়িয়ে থাকার সুফল জেনে নিন

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ এককথায় একে বলে ‘দ’ হয়ে দাঁড়ানো। ব্যায়ামের পরিভাষায় স্কোয়াট। ভেঙে বললে, চেয়ারে বসার মতো করে হাঁটু ভাঁজ করে কোমর ও পিঠ সোজা রেখে দাঁড়ানো। হাত দু’টো সামনের দিকে টানটান করে ছড়ানো। প্রতি দিন শরীরচর্চার সময় না পেলেও অন্তত মিনিট পাঁচেক এই ভাবে দাঁড়ানোর অভ্যাস আপনার শরীরে কী কী মিরাকল ঘটাতে পারে জানেন?

 

বিশেষজ্ঞদের মতে, রোজ শরীরচর্চার সময় পান ছাই না পান, নিয়ম করে মিনিট পাঁচেক স্কোয়াট হতে পারে আপনার বিপদতাড়ন। লাফানো, দৌড়নো, হাঁটাহাঁটিতে পায়ের পেশীর যে উপকার মেলে, স্কোয়াট তার অনেকটাই পুষিয়ে দেয়। পায়ের স্নায়ুকে আরাম দেওয়ার সঙ্গে পুরো পায়ের পেশীকে শক্তসমর্থ করে স্কোয়াট।

 

শুধু পেশীর জোর বাড়ানোই নয়, টেস্টোস্টেরন ও গ্রোথ হরমোন নিঃসরণে বিশেষ কার্যকর এই ব্যায়াম।যার জেরে পেশীর বৃদ্ধি ও ভরকে নিয়ন্ত্রণ করা অনেক সহজ হয়। সারা শরীরে শক্তির সমান বণ্টনের ক্ষেত্রেও বিশেষ কাজ করে এই ব্যায়াম। তাই শরীরের ঊর্ধ্বাংশ ও নিম্নাংশে শক্তি প্রদান করতে এই অভ্যাসের জুড়ি নেই।

 

কথায় কথায় পেশীতে টান, গাঁটে ব্যথা, একটু দৌড়ঝাঁপেই পেশীর ব্যথা নিমেষে গায়েব করতে পারে স্কোয়াট। প্রতি দিন এমন ব্যায়ামে শরীর সারা দিন সতেজ তো থাকেই, সঙ্গে শরীরের কার্যক্ষমতা বেড়ে যায় কয়েক গুণ। দেহের ব্যালান্স, গতিশীলতা সব কিছুকেই স্বাভাবিক করতে প্রতি দিন এই ব্যায়ামের জন্য মিনিট পাঁচেক ব্যয় করা এক মোক্ষম দাওয়াই!

 
কী ভাবছেন, শুধুই পেশীর উপকার? মোটেও না। বরং হাঁটাহাঁটিতে যে পরিমাণ ক্যালোরি বার্ন হয়, তার চেয়েও বেশি ফ্যাট ঝরাতে পারে এই ব্যায়াম। স্কোয়াটের ফলে যে সব মাংসপেশী সুগঠিত হয়, তার প্রতি পাউন্ডের জন্য অতিরিক্ত ৫০-৭০ ক্যালোরি বার্ন হয়। ফলে মাত্র ১০ পাউন্ড পেশী থেকেই মিলতে পারে ৫০০-৭০০ ক্যালোরি বার্ন।

 
পেশীকে শক্তিশালী করা ও সুগঠন দেওয়ার কারণে হঠাৎপড়ে যাওয়া বা সহজেই আঘাত পাওয়ার ঘটনা তো কমেই, সঙ্গে লিগামেন্ট, টিস্যুকেও শক্তিশালী করে তোলে স্কোয়াট। ফলে শরীরে আঘাতের প্রবণতা কমে। পেশীর নমনীয়তা বাড়ায় তা সহজে ভারসাম্য হারাতে দেয় না।
এই ব্যায়াম মাসখানেক করার পরেই নিজের দৌড়নো, লাফানো বা পরিশ্রম করার ক্ষমতা দেখলে চমকে যাবেন নিজেই। যাঁরা খোলোয়াড়, তাঁদের ক্ষেত্রেও জোরে দৌড়তে বা অনেকটা লাফাতে সাহায্য করে স্কোয়াট। অনেকেই দু’হাতে দু’টি জল ভরা বোতল নিয়ে স্কোয়াট করেন। এতে আরও ভাল ফল মেলে।

 
শরীরের গঠন, পিঠ ও কোমরের আকার ও গোটা শরীরে নানা অ্যাব তৈরি করতে স্কোয়াট একাই একশো! শুধু তা-ই নয়, শরীরে ফ্যাট নিয়ন্ত্রণ, লিপিড মেটাবলিজম, রক্তে শর্করার পরিমাণ ঠিক রাখা ইত্যাদিও এই ব্যায়ামের মাধ্যমে সম্ভব। ক্ষতিকর ফ্যাট গলিয়ে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে বলেই ডায়াবিটিস, ওবেসিটি ইত্যাদি থেকে শরীরকে অনেকটাই দূরে রাখার ক্ষমতা রাখে স্কোয়াট।

 
এই ব্যায়ামের প্রভাবে সারা শরীরে রক্ত সঞ্চালন ভাল হয়। হরমোন ক্ষরণ, কোষে কোষে পুষ্টিগুণ পৌঁছনোর কাজও সহজ হয়ে যায়। ফলে পেটের সমস্যা প্রতিরোধ, সারা শরীরে উপকারি বডি ফ্লুয়িড পৌঁছনোর মতো প্রয়োজনীয় জৈবিক কাজও অনেক সহজ করে তোলে এই স্কোয়াটর অভ্যাস। সুতরাং আর দেরি না করে আজ থেকেই শুরু করুন স্কোয়াট।


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com