বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯, ০২:৩৮ পূর্বাহ্ন

সাংসদ মাশরাফির রংপুরকে হারালো চিটাগং ভাইকিংস

স্পোর্টস ডেক্স : বিপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে মাশরাফির রংপুরকে হারিয়ে শুভসূচনা করলো চিটাগং ভাইকিংস। ৯৯ রানের টার্গেট থাকলেও প্রতিরোধ জমিয়ে তুলেছিল বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্স। শেষ পর্যন্ত ১৯.১ ওভারে ৩ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় মুশফিকুর রহিমের দল।রংপুর রাইডার্সের দেওয়া ৯৯ রানের টার্গেটের জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে চিটাগংয়ের দলীয় ১৫ রানে ক্যামেরন ডেলপোর্টকে অ্যালেক্স হেলসের তালুবন্দি করেন রংপুর অধিনায়ক মাশরাফি। ৫ বছর পর বিপিএলে প্রত্যাবর্তন সুখের হয়নি আশরাফুলের। মাত্র মাত্র ৩ রান করে শফিউলের বলে অ্যালেক্স হেলসের তালুবন্দি হন। অপর ওপেনার মোহাম্মদ শেহজাদ (২৭) শিকার হন হাওয়েলের।

এরপর ১৭ রানের মাঝে দ্রুত ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে চিটাগং। রান-আউট হয়ে যান সিকান্দার রাজা (৩)। মোসাদ্দেক (২) শিকার হন ফরহাদ রেজার। মাশরাফিকে ডাউন দ্য উইকেটে এসে মারতে গিয়ে মিডলস্টাম্প উড়ে যায় নাঈম হাসানের (১০)। একপ্রান্ত অবিচল থেকে দলকে টানতে থাকেন অধিনায়ক মুশফিক। জয়ের কাছাকাছি গিয়ে নাজমুল অপুর ঘূর্ণিতে থামে তার ৩১ বলে ২৫ রানের ইনিংস। ম্যাচের শেষটা আরও নাটকীয়। কম পুঁজি নিয়েও দারুণ ফাইট দিচ্ছিল রংপুর। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ৫ বল এবং ৩ উইকেট হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় চিটাগং।

এর আগে উদ্বোধনী ম্যাচে টস ভাগ্যে জেতেন চিটাগং অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। ব্যাটিংয়ে নেমে বোলিং তোপে পড়ে রংপুর। সূচনালগ্নেই তাদের কাঁপিয়ে দেন চিটাগংয়ের দুই পেসার রব্বি ফ্রাইলিঙ্ক ও আবু জায়েদ রাহি। গতি আর সুইংয়ে বিভ্রান্ত করে অ্যালেক্স হেলস, মেহেদী মারুফ ও মোহাম্মদ মিথুনকে সাজঘরে ফেরান ফ্রাইলিঙ্ক। আর রাইলি রুশোকে শিকার বানান রাহি।

সেই চাপের মধ্যে বেনি হাওয়েল ও ফরহাদ রেজাকে ড্রেসিংরুমের পথে ধরান নাইম হাসান। এতে ৩২ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে বিপর্যয়ে পড়ে রংপুর। এ পরিস্থিতে খালেদ আহমেদকে উইকেট বিলিয়ে দেন মাশরাফী। ফলে বিপিএল ইতিহাসে সর্বনিম্ন রানে গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কা দেখা দেয়।

কিন্তু সেই পথে বাধা হয়ে দাঁড়ান রবি বোপারা। অষ্টম উইকেটে সোহাগ গাজীকে নিয়ে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন তিনি। ভালো খেলছিলেন তারা। তবে হঠাৎ খেই হারান গাজী। ফ্রাইলিঙ্কের চতুর্থ শিকার হয়ে ফেরেন তিনি। ফেরার আগে করেন ২১ রান। সবচেয়ে বড় কথা, বোপারার সঙ্গে তার ৪৯ রানের জুটিতে লজ্জার হাত থেকে বাঁচে রংপুর।

একের পর এক ব্যাটসম্যান যাওয়া-আসার মিছিলে যোগ দিলেও থেকে যান বোপারা। একপ্রান্ত আগলে একাই লড়াই চালিয়ে যান তিনি। শেষদিকে হার মানেন এ ইংলিশ ব্যাটারও। রাহীর শিকারে পরিণত হন বোপারা। ফেরার আগে ৪৭ বলে ৩ চার ও ২ ছক্কায় ৪৪ রানের লড়াকু ইনিংস খেলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত ৯৮ রানে গুটিয়ে যায় রংপুর।

চিটাগংয়ের হয়ে রব্বি ফ্রাইলিঙ্ক নেন ৪ উইকেট। ২টি করে ঝুলিতে ভরেন নাঈম হাসান ও আবু জায়েদ রাহি। ১ উইকেট বাগে টানেন খালেদ আহমেদ। দুর্দান্ত বোলিং করে ম্যাচসেরার পুরস্কার উঠে ফ্রাইলিঙ্কের হাতেই।


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com