বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯, ০১:৫১ পূর্বাহ্ন

আগামীকাল শুরু হচ্ছে ভারতের লোকসভা নির্বাচন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচন শুরু হচ্ছে আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকে। দেশটির নির্বাচন কমিশন লোকসভার ৫৪৩টি আসনের ভোট গ্রহণ করবে মোট ৭ দফায়। এর মধ্যে আগামীকাল প্রথম দফায় ১৮টি রাজ্য ও দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের ৯১টি আসনে ভোট হবে।
লোকসভা নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শেষ হবে আগামী ১৯ মে। আর ফলাফল প্রকাশ করা হবে ২৩ মে।

এদিন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের দুটি আসনে ভোট হওয়ার কথা রয়েছে। আসন দুটি হচ্ছে কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ার।

বৃহস্পতিবার অন্ধ্রপ্রদেশের ২৫টি লোকসভা ও ১৭৫টি বিধানসভা আসনে একসঙ্গে ভোট হবে। এই রাজ্যে ক্ষমতায় আছে তেলুগু দেশম পার্টি। দলের প্রধান ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু তার নির্বাচনী প্রচারে বিরোধীদের একযোগে আক্রমণ করেছেন। তার নিশানায় ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও এবং ওয়াইএসআর কংগ্রেসের সভাপতি ওয়াই জগনমোহন রেড্ডি।

অন্যদিকে, জগনমোহন ভোটারদের কাছে রাজ্যের উন্নয়নের জন্য তাকে একবার সুযোগ দেওয়ার আর্জি জানিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি তার বাবা রাজশেখর রেড্ডির সাফল্য তুলে ধরেছেন বারবার। রাজনৈতিক মহলের মতে, এবারের নির্বাচনে অন্যতম নির্ণায়ক হয়ে উঠতে পারেন অভিনেতা ও জন সেনা পার্টির প্রধান পবন কল্যাণ। বিশেষ রাজ্যের মর্জাদা, অমরাবতীতে রাজধানী তৈরি করা সহ একাধিক বিষয় নির্বাচনের আগে মূল ইস্যু হিসেবে উঠে এসেছে।

ভারতে প্রথম দফা নির্বাচনে তেলেঙ্গানার ১৭টি লোকসভা কেন্দ্রে নির্বাচন হবে। হায়দরাবাদ আসন থেকে প্রার্থী হয়েছেন চারবারের সাংসদ ওয়াইসি। প্রথম দফার নির্বাচনের আগে আলোচনা শীর্ষে উঠে এসেছে নিজামাবাদ কেন্দ্রটি। এই কেন্দ্রে মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাওয়ের মেয়ে কে কবিতার বিরুদ্ধে প্রার্থী হয়েছেন ১৭০ জন কৃষক। তেলেঙ্গানা থেকে এবার ভোটে দাঁড়িয়েছেন কংগ্রেস নেত্রী রেনুকা চৌধুরী এবং প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি উত্তমকুমার রেড্ডি।

অন্যদিকে উত্তরপ্রদেশে ভোট হবে আটটি লোকসভা আসনে। এখানে মোদির দল ক্ষমতাসীন বিজেপির সঙ্গে সমাজবাদী পার্টি, বহুজন সমাজ পার্টি ও রাষ্ট্রীয় লোক দল (আরএলডি) জোটের লড়াই হবে বলে ধারণা। ২০১৪-র লোকসভায় সাহারানপুর, কৈরানা, মুজফ্ফরপুর সহ সবকটি আসনে জয় পেয়েছিল গেরুয়া শিবির। মুজফ্ফরনগর কেন্দ্রে বিজেপির সঞ্জীব বলয়ানের বিরুদ্ধে প্রার্থী হয়েছেন আরএলডি দলের প্রধান অজিত সিং। তার ছেলে জয়ন্ত চৌধুরী কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সত্যপাল সিংয়ের বিরুদ্ধে প্রার্থী হয়েছেন বাগপত আসন থেকে। গাজিয়াবাদ ও গৌতম বুদ্ধ নগর থেকে বিজেপি টিকিট দিয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ভিকে সিং এবং মহেশ শর্মাকে।

বৃহস্পতিবার, উত্তরাখণ্ডের পাঁচটি লোকসভা আসনে ভোট হতে চলেছে। এই রাজ্যের প্রতিটি আসনে বিগত নির্বাচনে জয় পেয়েছিল বিজেপি। কিন্তু এবার সেখানে গেরুয়া শিবিরকে ধাক্কা দেয়ার জোর চেষ্টা চালাচ্ছে কংগ্রেস। তেহরি থেকে প্রীতম সিং, নৈনিতাল থেকে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হরিশ রাওয়াত এবং মণীশ খাণ্ডুরিকে পাউরি থেকে টিকিট দিয়েছে রাহুল গান্ধীর দল।

একইদিনে উড়িষ্যার চারটি লোকসভা এবং ২৮টি বিধানসভা কেন্দ্রে নির্বাচন হবে। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি মাওবাদী উপদ্রুত এলাকাও রয়েছে।

অন্যদিকে, আসামের তেজপুর, কালিয়াবর, জোরহাট, ডিব্রুগড় এবং লখিমপুরে ভোট হবে আগামীকাল। পাঁচটি কেন্দ্রে মোট ৪১জন প্রার্থীর ভাগ্য নির্ধারন হবে। এছাড়া মহারাষ্ট্রে সাতটি, বিহারে চারটি, পশ্চিমবঙ্গ, জম্মু ও কাশ্মীর, মেঘালয় এবং অরুণাচল প্রদেশের ২টি করে আসনে ভোটাররা তাদের মতামত দেবেন। পাশাপাশি মিজোরাম, ত্রিপুরা, মণিপুর, ছত্তিশগড়, নাগাল্যান্ড, সিকিম, আন্দামান-নিকোবর ও লাক্ষাদ্বীপের একটি করে আসনে নির্বাচন হতে চলেছে।

ধারণা করা হচ্ছে, এবাবারের নির্বাচনেও মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে ক্ষমতাসীন বিজেপির নেতৃত্বাধীন জোট ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স (এনডিএ) এবং প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন জোট ইউনাইটেড প্রগ্রেসিভ অ্যালায়েন্সের (ইউপিএ) মধ্যে। নির্বাচনী প্রচারণায় বিজেপি ও কংগ্রেসের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি আক্রমণ ও তীব্র সমালোচনা শুরু থেকেই অব্যাহত ছিল। বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী পরস্পরকে কঠোর আক্রমণ করে বক্তব্য দেন। এছাড়া নরেন্দ্র মোদি ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মধ্যেও তুমুল বাকবিতণ্ডা হয়েছে।

নির্বাচনের প্রাক্কালে জনমত সমীক্ষাগুলোতে দেখা যায়, এবারের নির্বাচনেও এগিয়ে থাকবে বিজেপির নেতৃত্বাধীন জোট এনডিয়ে। তবে ভোট কমবে মোদির দল বিজেপির। অন্যদিকে গতবারের তুলনায় এবরের নির্বাচনে আসন বেশি পেলেও রাহুল গান্ধীর দল সরকার গঠন করতে পারবে না বলেই ধারণা রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।

জনমত জরিপে দেখা যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গে এবারও আধিপত্য ধরে রাখার সম্ভাবনা রয়েছে দিদির দল তৃণমূল কংগ্রেসের। সেক্ষেত্রে ফের মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন তৃণমূল নেত্রী। তবে আসন সংখ্যা কমতে পারে দলটির।

সূত্র: বর্তমান


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com