সোমবার, ২০ মে ২০১৯, ০৬:২৪ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :

উত্তরা-মতিঝিল রুটেও চালু হচ্ছে চক্রাকার বাস

উত্তরা-মতিঝিল রুটেও চালু হচ্ছে চক্রাকার বাস

ধানমন্ডি-নিউমার্কেট-আজিমপুরের মতো রাজধানীর উত্তরা এবং মতিঝিলেও পৃথকভাবে চক্রাকার বাস সার্ভিস চালু হতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন। খুব শীঘ্রই এই বাস চালু হবে বলে জানান তিনি। এদিকে মোহাম্মদপুর থেকে আজিমপুর রুটে আগে শুধুমাত্র একটা বাসই চলাচল করতো। তবে সেটা ছিলো না পর্যাপ্ত। লোকাল এই মিনি বাসে মানুষ গরমে যাতায়াত করতো। যা ছিল রীতিমতো দূর্বিষহ। আর মানুষের এই কষ্ট লাঘব করতে সম্প্রতি আজিমপুর-জিগাতলা-মোহাম্মদপুর ও আজিমপুর-কলাবাগান-মোহাম্মদপুর এই দুই রুটে চালু কর হয় বাংলাদেশের রাষ্ট্রয়াত্ব এসি বাস বিআরটিসি। আর এতে করে এই রুটে মানুষের যাতায়াতের কষ্ট পুরোটাই কমে গিয়েছে। মাত্র ৩০ টাকার বিনিময়ে জনগণ আজিমপুর থেকে মোহাম্মদপুর যাতায়াত করতে পারছে।

৮ মে রাজধানীর গুলিস্তানে অবস্থিত ডিএসসিসি সভাকক্ষে রাজধানীর গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরানোর লক্ষ্যে গঠিত বাস রুট রেশনালাইজেশন-সংক্রান্ত কমিটির পঞ্চম বৈঠক শেষে তিনি এ সিদ্ধান্তের কথা জানান।

সাঈদ খোকন বলেন, চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে মতিঝিলে চক্রাকার বাস সার্ভিস চালু হবে। এছাড়া মে মাসের প্রথম সপ্তাহে উত্তরায় এ সার্ভিস চালু হবে। এ সেবার মাধ্যমে কম খরচে স্বাচ্ছন্দ্যে যাত্রীরা চলাচল করতে পারবে। পাশাপাশি যানজট নিরসনেও চক্রাকার বাস ভূমিকা রাখবে। প্রতিটি বাসেই র্যাপিড পাস কার্ডের মাধ্যমে ভাড়া পরিশোধ করা যাবে।

মেয়র বলেন, নির্দিষ্ট কোম্পানির তত্ত্বাবধানে রাজধানীতে সাড়ে চার হাজার বাস নামানো হবে। পুরো রুট রেশনালাইজেশন কাজ শেষ হতে দুই বছর সময় লাগবে। কারণ এখনে টার্মিনাল, ডিপো, চালকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে। এসব চক্রাকার বাস রুট রেশনালাইজেশন প্রক্রিয়ার ছোট ছোট অংশ। ধানমন্ডি-নিউমার্কেট-আজিমপুর রুটের চক্রাকার বাস সেবা ইতিমধ্যে চালু হয়েছে। এখন হয়তো কিছুটা ত্রুটি-বিচ্যুতি রয়েছে; তবে আগামী ১৫ দিনের মধ্যেই যাত্রীরা এর সার্বিক সুবিধা ভোগ করতে পারবে।

মেয়র সাঈদ খোকনের সভাপতিত্বে সভায় ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষযক সচিব আবুল কালাম আজাদ, বিআরটিসির চেয়ারম্যান ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, বিআরটিএ চেয়ারম্যান মশিউর রহমান, পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মো. রেজাউল আলম, সড়ক পরিবহন নেতা খন্দকার এনায়েত উল্লাহ, ডিটিসিএ নির্বাহী পরিচালক রকিবুর রহমান, যোগাযোগ বিশেষজ্ঞ সালাহউদ্দিনসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, রাজধানীর গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরানো ও যানজট নিরসনের লক্ষ্যে গত বছর সিনিয়র সচিব জাফর আহমেদ খান স্বাক্ষরিত একটি প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে এ কমিটি গঠন করে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগ।

১০ সদস্যের এ কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে ডিএসসিসির মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকনকে। কমিটিতে ডিএনসিসির মেয়রকে যুগ্ম-আহ্বায়ক এবং অন্য সদস্যরা হলেন বিআরটিএর চেয়ারম্যান, বিআরটিসির চেয়ারম্যান, রাজউক চেয়ারম্যান, ডিএমপি কমিশনার, গণপরিবহন বিশেষজ্ঞ ড. এস এম সালেহ উদ্দিন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি ও ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষের নির্বাহী পরিচালক।


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com