শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৯:৩৯ অপরাহ্ন

বগুড়া-৬ আসনের উপ-নির্বাচনে অংশ নিবে বিএনপি, তৃণমূলে ক্ষোভ!

বগুড়া-৬ আসনের উপ-নির্বাচনে অংশ নিবে বিএনপি, তৃণমূলে ক্ষোভ!

নিউজ ডেস্ক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৬ আসন থেকে নির্বাচিত মির্জা ফখরুল ইসলাম শপথ না নেওয়ায় আসনটি শূন্য ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। এরপর ওই আসনে উপ-নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশন আগামী ২৪ জুন তারিখ ধার্য করেছে। নানা নাটকীয়তার পর ওই আসনে অংশ নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। সোমবার (১৩ মে) সন্ধ্যায় ২০ দলীয় জোটের বৈঠকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শরিকদের এ বিষয়ে ইঙ্গিত দিয়েছেন।

বগুড়া-৬ আসনের উপ-নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেয়ার সিদ্ধান্তে দলে নানা রকম অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে। দলের এমন সিদ্ধান্ত নিয়ে নেতাদের মধ্যে দেখা দিয়েছে বিভক্তি। যে নির্বাচন গ্রহণযোগ্য নয়, সেই নির্বাচন নিয়ে এত আগ্রহ কেন বিএনপির-এমন প্রশ্ন এখন বিএনপি নেতাদের মুখে মুখে ঘুরে ফিরছে। তবে এই সিদ্ধান্ত তৃণমূলে দেখা দিয়েছে একটু ভিন্নভাবে। তৃণমূল নেতারা বলছেন, বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাব না- কেন্দ্রের এমন সিদ্ধান্ত কেনো উল্টে যাচ্ছে? ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদ নির্বাচন বর্জন করে এখন উপ-নির্বাচনে অংশ নেয়ার মানে কী দাঁড়ায়?

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নেয়ায় বহিষ্কৃত নেতা মৌলভীবাজার জেলা যুবদল সহ-সভাপতি লিটন আহমেদ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমরা বারবার কেন্দ্রকে বলেছিলাম- তৃণমূলের রাজনীতি ধরে রাখতে স্থানীয় পর্যায়ের নির্বাচনে অংশগ্রহণের অনুমতি দেয়া হোক। তা না দিয়ে আমাদের বলা হলো- সংসদ নির্বাচনে সরকারের প্রতি অনাস্থা দেখাতে স্থানীয় পর্যায় থেকে শুরু করে সকল পর্যায়ের নির্বাচন বয়কট করবে বিএনপি। নির্বাচনে অংশগ্রহণ নিয়ে জনগণের চাপকে প্রাধান্য দিতে আমরা উপজেলা নির্বাচন করলাম বলে আমাদের বহিষ্কার করা হলো। এখন বর্তমান সরকারের অধীনে উপ-নির্বাচনে গেলে সেটি দলীয় শৃঙ্খলা বহির্ভূত দাঁড়াবে না?

একই রকম ক্ষোভ প্রকাশ করে বহিষ্কৃত নেতা কুমিল্লা উত্তর জেলা বিএনপি’র সভাপতি খোরশেদ আলম বলেন, কী করবে তার ঠিক পাচ্ছে না বিএনপি। একবার নিজেরাই বলছে- নির্বাচন হারাম, আবার নিজেরাই বলছে- নির্বাচন জায়েজ। দলে সাংগঠনিক কোনো সমন্বয় নেই। কে, কখন, কী, কেন সিদ্ধান্ত নিচ্ছে তা বোঝা মুশকিল। বিএনপি এখন দুমুখো সাপের মতো আচরণ করছে। যাকে ইচ্ছা হচ্ছে ছোবল মারছে। উপ-নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করবে কিনা তা নিয়ে তো আমরা যারা বহিষ্কৃত তাদের কোনো মাথাব্যথা নেই। কিন্তু যা হচ্ছে তা নিয়ে দলের কর্মীদের ভেতরে যে অসন্তোষ ছড়িয়ে পড়ছে তা মোটেই বিএনপির জন্য ভালো হবে না। এটা ভেবে দেখা দরকার।

প্রসঙ্গত, বগুড়া-৬ আসনের নির্বাচনে অংশ নেয়ার সিদ্ধান্তের পাশাপাশি জাতীয় সংসদে আনুপাতিক হারে পাওয়া একটি সংরক্ষিত নারী আসনেও মনোনয়ন দেবে বিএনপি।সুত্র: .banglanewsbank


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com