বৃহস্পতিবার, ২২ অগাস্ট ২০১৯, ০৯:১৬ পূর্বাহ্ন

গুরুদাসপুরে হত্যা মামলার সাক্ষিকে কুপিয়ে হত্যা

গুরুদাসপুরে হত্যা মামলার সাক্ষিকে কুপিয়ে হত্যা

রাজু আহমেদ, নাটোর:গুরুদাসপুরে স্বামী পরিত্যাক্তা নারী সফুরা খাতুন হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী জালাল উদ্দিনের ডান হাত কেটে নিয়েছে আসামি। গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাহারুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

 

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) সকালে আদালতে সাক্ষ্য দিতে যাওয়ার পথে বিয়াঘাট ইউনিয়নের যোগেন্দ্র নগর বাজারের কাছে ঘটনা ঘটে। এ সময় জালাল উদ্দিনের পায়ের রগ ও বাম হাতটিও কুপিয়ে জখম করা হয়। জালাল উদ্দিন উপজেলার যোগেন্দ্র নগর গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে।

 

আহতের স্বজনদের বরাত দিয়ে গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাহারুল ইসলাম জানান, ২০১৩ সালের ১৩ই মে উপজেলার যোগেন্দ্র নগর গ্রামের স্বামী পরিত্যাক্তা এক নারীকে শারীরিক নির্যাতনের পর হত্যা করে নদীতে ফেলে দেয় সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় নিহত সফুরার ভাই বাদী হয়ে সাইফুল ইসলাম, শরিফুল ইসলাম রফিকুল ইসলামসহ আরো কয়েকজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে মামলা দায়ের করেন। সেই হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী জালাল উদ্দিন আজ আদালতে হাজিরার নির্ধারিত দিন ছিল।

 

সকালে জালাল উদ্দিন সাক্ষী দিতে আদালতে যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হলে পথে যোগেন্দ্র নগর বাজারের কাছে প্রতিপক্ষরা ধারালো অস্ত্র নিয়ে তার ওপর হামলা করে। এসময় প্রতিপক্ষরা জালাল উদ্দিনের ডান হাত কেটে নেয় এবং বাম হাতসহ পা কেটে জখম করে। পরে স্থানীয়রা আহত অবস্থায় জালালকে উদ্ধার করে প্রথমে গুরুদাসপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায় ও পরে তার অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসক রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জালাল উদ্দিনকে স্থানান্তর করা হয়। চিকিৎসাধিন অবস্থায় দুপুরে তার মৃত্যু হয়।


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com