মঙ্গলবার, ২০ অগাস্ট ২০১৯, ০৪:২৭ পূর্বাহ্ন

মান্দায় কলেজ অধ্যক্ষের অপসারণের দাবীতে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের ক্লাশ বর্জন

মান্দায় কলেজ অধ্যক্ষের অপসারণের দাবীতে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের ক্লাশ বর্জন

নুর কুতুবুল আলম,স্টাফ করেসপনডেন্ট: নওগাঁর মান্দা পানিয়াল আদর্শ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ কায়মুল হকের দূর্নীতি,স্বজনপ্রীতি,একগুঁয়েমি ও নানা অনিয়মের অভিযোগে ছাত্র-ছাত্রী,শিক্ষক মন্ডলী ক্লাশ বর্জণ করে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। ঘটনা ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে আজ বুধবার বেলা এগারো ঘটিকায় বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে কলেজ চত্বরে অধ্যক্ষের অপসারণ চেয়ে ছাত্র-ছাত্রী,শিক্ষক মন্ডলী,এলাকাবাসী প্রতিবাদ সমাবেশ করে।

 
সূত্র আরও জানায়, নানা অনিয়মের অভিযোগে অধ্যক্ষকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। কলেজের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ ওয়াক্কাস আলীকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

 
প্রতিষ্ঠানের সভাপতি কাঞ্চন কুমার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়ার কথা বল্লে অফিস রুমে হৈচৈ ধাক্কা ধাক্কি বেধে যায়। অধ্যক্ষের হাতে কমলা রঙ্গের ডাটওয়ালা চাকু(ফলকাটা) উঁচিয়ে কথা বলতে শুনা গেছে। এছাড়াও দু’পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি ও অশ্লীল বাক্য বিনিময় করতে দেখা গেছে (অড়িও- ভিড়িও ক্লিপ এ প্রতিবেদকের কাছে রয়েছে)।

 
শিক্ষক এসএমএ খায়ের বলেন,অধ্যক্ষ সাহেব তাঁর সাথে অশালীন আচরণ করেছেন। এমন কী আমার শরীরে চাকু দিয়ে আঘাত করার সময় আমার পোশাক কেটে গেছে।

 
শিক্ষক সাইফুল ইসলামের হাতে কামড়ের দাগ দেখা গেছে। কী ভাবে আপনার হাতে দাগ হলো জানতে চাইলে তিনি বলেন, ধস্তাধস্তির সময় চাকু কেড়ে নিতে চাইলে অধ্যক্ষ সাহেব আমার হাতে কামড় দেন। ঐ শিক্ষক আরও জানান, তেঁতুলিয়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রে তিনি প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

 
ছাত্র অভিভাবক জামরুল ইসলাম (মাংশ বিক্রেতা) বিক্ষোভ মিছিলের সময় সংবাদ কর্মীদের দেখতে পেয়ে অনেকটা নিজ আগ্রহে বলেন, আমি একবার অসুস্থ্য হয়ে পড়লে মেয়ের জন্য ফি মওকুফের জন্য কায়মুল প্রিন্সিপালকে বল্লে তিনি বলেছিলেন, তোমার মেয়ের এবার পরীক্ষা দেয়ার দরকার নাই।

 
কলেজের শিক্ষার্থী ও কলেজ শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি লুৎফোর রহমান বাবর জানায়, আমাদের জন্য বিনোদন ও খেলাধুলার কোন ব্যবস্থা নাই, অধ্যক্ষ স্যারকে জানালেও তিনি কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। শিক্ষার্থী শিউলি বলেন ,আমাদের শ্রেণি কক্ষের ফ্যান নেই,ছাদ দিয়ে পানি পড়ে, সুপেয় পানির কোন ব্যবস্থা নেই। প্রিন্সিপাল স্যারকে জানিয়ে কোন কাজ হয়নি তাই আমরা অনির্দিষ্ট কালের জন্য ক্লাশ বর্জন করেছি। এ ঘটনায় বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া লক্ষ করা গেছে।

 
এছাড়াও কলেজের কয়েকজন শিক্ষক জানান, শ্রেণি কক্ষ সংকট,শিক্ষক-শিক্ষিকাদের জন্য আলাদা টয়লেট না থাকা,ফ্যানের অভাব, অকেজো টেলিভিশন, ঘড়ির ব্যাটারী না থাকা,বিদ্যুৎ থাকলেও পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা নাই। অধ্যক্ষ সাহেবের নানা অনিয়মের প্রতিবাদে আজ আমাদের শ্রেণিকক্ষ ছেড়ে রাস্তায় নামতে হয়েছে।

 
কী কারণে অধ্যক্ষ কায়মুল হককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে এমন প্রশ্ন প্রতিষ্ঠানের সভাপতি কাঞ্চন কুমারকে করা হলে মোবাইল ফোনে তিনি জানান, বহুবিধ অপরাধে তাঁকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। অধ্যক্ষ কায়মুল হকের সাময়িক বরখাস্তের অনুলিপি মহাপরিচালক, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর ঢাকা, উপাচার্য জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, চেয়ারম্যান মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড রাজশাহী, জেলা প্রশাসক নওগাঁসহ বিভিন্ন দপ্তরে প্রেরণ করা হয়েছে।

 
অধ্যক্ষ কায়মুল হকের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে একাধিক বার কল করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। সে কারণে তাঁর বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com