মঙ্গলবার, ২০ অগাস্ট ২০১৯, ০৪:৪০ পূর্বাহ্ন

১২ লাখ শিশু-কিশোরকে প্রশিক্ষণ দেবে গ্রামীণফোন

১২ লাখ শিশু-কিশোরকে প্রশিক্ষণ দেবে গ্রামীণফোন

নিজস্ব প্রতিবেদক: অনলাইনে শিশু-কিশোরদের হয়রানি বন্ধে ইন্টারনেটের ব্যবহার নিরাপদ করতে হবে। এজন্য প্রশিক্ষণের মাধ্যমে শিশু-কিশোর ও অভিভাবকদের সচেতন করে তুলতে হবে। ২০২১ সালের মধ্যে ১২ লাখ শিশু-কিশোর-অভিভাবককে অনলাইনে নিরাপদ থাকার প্রশিক্ষণ দেবে গ্রামীণফোন, টেলিনর ও ইউনিসেফ।

 

 

অনলাইনে শিশুরা বেশিরভাগ সময় কাটায় যোগাযোগ করে এবং ভিডিও দেখে। ৭০ শতাংশ ছেলে ও ৪৪ শতাংশ মেয়ে অনলাইনে অপরিচিত মানুষের বন্ধুত্বের অনুরোধ গ্রহণ করে। ইউনিসেফের জরিপে মিলেছে এমন তথ্য। তারা বলছে, দেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মধ্যে ১০ থেকে ১৭ বছর বয়সী ৩২ শতাংশ শিশু অনলাইনে সহিংসতার শিকার হচ্ছে বা এ ধরনের বিপদের মুখে আছে।

 

 

এমন প্রেক্ষাপটে ‘বাংলাদেশে শিশুর অনলাইন সুরক্ষার মাত্রা বাড়ানো ও জোরদার করা’ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে ইউনিসেফ। এই প্রকল্পের আওতায় আগামী দুই বছরের মধ্যে ৬ লাখ শিশু-কিশোরকে অনলাইনে নিরাপদ থাকতে প্রশিক্ষণ দেয়ার লক্ষ্য নিয়েছে সংস্থাটি। আর এটি করতে তাদের অংশীদার হয়েছে দেশের শীর্ষস্থানীয় টেলিকম অপারেটর গ্রামীণফোন ও তাদের মালিক প্রতিষ্ঠান টেলিনর।

 

 

ইউনিসেফের ডেপুটি রিপ্রেজেনটেটিভ ডারা জনস্টন বলেন, আমরা আশা করি, এই অংশীদারিত্ব শিশুর অনলাইন সুরক্ষা সম্পর্কে বাস্তবসম্মত পরামর্শগুলোর প্রাতিষ্ঠানিকীকরণ করবে এবং এগুলো বাংলাদেশের শিশুদের জন্য শিক্ষার অন্যতম অংশ হয়ে উঠবে।

 

 

ইউনিসেফের উদ্যোগে ২০১৮ সালে চালু হওয়ায় এই প্রকল্পের মাধ্যমে এরইমধ্যে ৪ লাখ শিক্ষার্থী ও ৭০ হাজার অভিভাবককে সচেতন করা হয়েছে।

 

 

গ্রামীনফোনের চিফ করপোরেট অ্যাফেয়ার্স অফিসার ওলে বিয়র্ন বলেন, আমরা চাই, আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্ম ইন্টারনেট বিষয়ে তাদের দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন হোক ও যথাযথ জ্ঞান রাখুক। শিক্ষা গ্রহণে তাদের ইন্টারনেটের সুবিধা গ্রহণ, স্মার্ট হওয়া ও নিজের হৃদয়কে ব্যবহারে এর গুরুত্ব বুঝুক।

 

 

একটি সমন্বিত যোগাযোগ প্রচারাভিযানের মাধ্যমে প্রকল্পটি ২ কোটি মানুষের কাছে পৌঁছাবে এবং সহায়ক পদক্ষেপ গ্রহণে কমপক্ষে ৫০ হাজার মানুষকে উপকৃত করবে বলে আশা করছে বাস্তবায়নকারীরা।


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com