মঙ্গলবার, ২০ অগাস্ট ২০১৯, ০৪:৩২ পূর্বাহ্ন

প্রবীণ ও পরীক্ষিত নেতৃবৃন্দের সম্মাননা দিলেন রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগ

প্রবীণ ও পরীক্ষিত নেতৃবৃন্দের সম্মাননা দিলেন রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগ

নিজস্ব প্রতিবেদক : উপমহাদেশের প্রাচীনতম ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭০’তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতিতে  শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি আপনার অবিচল আস্থা, ত্যাগ, শ্রম ও সাংগঠনিক কর্মকান্ডের জন্য ১১২ (একশত বার)  জনকে ‘‘আজন্ম যোদ্ধা” সম্মননা প্রদান করা হয়। আজ ৫ জুলাই ২০১৯ শুক্রবার বিকাল ৩:৩০ মি. রাজশাহী মনিবাজারস্থ শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান মিলনায়তনে সম্মাননা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। রাজশাহী জেলার বিভিন্ন উপজেলার আওয়ামী লীগের তৃণমুলের প্রবীণ ও পরীক্ষিত নেতৃবৃন্দের সম্মননা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অধ্যাপক জিনাতুন নেসা তালুকদার।

 

সম্মাননা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাঃ আসাদুজ্জামান আসাদ, জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা এ্যাড. আব্দুস সামাদ, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনের এমপি প্রকৌশলী এনামুল হক, জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ও রাজশাহী-৫ (দুর্গাপুর-পুঠিয়া) আসনের সংসদ সদস্য ডাঃ মনসুর রহমান, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. আবিদা আনজুম মিতা, সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম আসাদুজ্জামান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেম আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটির সদস্য আলহাজ্ব একেএম আতাউর রহমান খান, জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলী বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. মতিউর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা একরামুল হক, অধ্যক্ষ সাহবুদ্দিন সরকার, বদিউজ্জামান বদি, এ্যাড. সুশান্ত ঘোষ, আলহাজ্ব আফসার আলী মোল্লা, ওহিদুর রহমান, সহ-সভাপতি আলহাজ্ব বদরুজ্জামান রবু, এ্যাড. মকবুল হোসেন খান, শ্রী অনিল কুমার সরকার, আব্দুল মজিদ সরদার প্রমূখ।

অনুষ্ঠানে আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, রাজশাহী জেলার উপজেলাগুলোর তৃণমুলে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতি যারা করতেন তাদের মধ্যে ৭০ থেকে ৮০ বছরের উর্দ্ধের প্রবীণ ও পরীক্ষিত নেতাদের আমরা সম্মাননা জানাতে পেরে আনন্দিত ও গর্বিত। কারণ তাদের মত মানুষদের জন্য আজও আওয়ামী লীগ বৃহৎ দল হিসেবে বেঁচে আছে। অথচ আমরা তাদের যখন সম্মাননা দেওয়ার জন্য সিদ্ধান্ত নিয়ে এই আয়োজন করেছি তখন আওয়ামী লীগের মধ্যে যে হাইব্রিড ঢুকেছে তাদের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ প্রভান্বিত হয়ে এই অনুষ্ঠান বন্ধ করার চেষ্টা করে। কিন্তু তাদের দ্বারা এই তৃণমুল আওয়ামী লীগ সবসময় অবহেলিত থেকেছে।

তিনি আরও বলেন, এই প্রবীণ আওয়ামী লীগ পাগল মানুষদের সম্মান দেখাতে পেরে জেলা আওয়ামী লীগ তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। যারা প্রবীণ ও পরীক্ষিত আওয়ামী লীগের নেতাদের অবজ্ঞা করে তাদের আওয়ামী লীগের থাকার কতটুকু অধিকার আছে সে প্রশ্ন আমি আপনাদের কাছে করছি। এরা সব সময় আওয়ামী লীগ বিরোধী ছিল এখনও আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে নিজেকে আওয়ামী লীগার হিসেবে জাহির করছে। এদের বিরুদ্ধে এখনই রুখে দাড়াতে হবে।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও সাবেক এমপি রায়হানুল হক রায়হান, সাংগঠনিক সম্পাদক আলফোর রহমান, আহসান উল হক মাসুদ, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক আ.ও.ম নুরুল আলম হিরু মাষ্টার, কৃষি সমবায় বিষয়ক সম্পাদক শ্রী প্রতিক দাস রানা, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক শরিফ খান, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মওলানা সিরাত উদ্দীন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মনিরুল ইসলাম বাবু, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আখতারুজ্জামান আখতার, মহিলা সম্পাদিকা এ্যাড. পূর্ণিমা ভট্টাচার্য, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক এমদাদুল ইসলাম মাষ্টার, সাংস্কৃতিক সম্পাদক ফেরদৌস আলী মাস্টার, উপ-দপ্তর সম্পাদক প্রভাষক শরিফুল ইসলাম, সদস্য আক্কাস আলী,

 

রাজশাহী জেলা যুবলীগের সভাপতি আবু সালেহ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলী আজম সেন্টু, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মর্জিনা পারভীন, সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. নাসরিন আক্তার মিতা, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি আব্দুল্লাহ খানসহ আওয়ামী লীগ, জেলা যুবলীগ, জেলা শ্রমিকলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, জেলা ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন, জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ফারুক হোসেন ডাবলু।


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com