বৃহস্পতিবার, ২২ অগাস্ট ২০১৯, ০২:০৯ অপরাহ্ন

হলের স্থান পুনঃনির্ধারণের দাবিতে জাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

হলের স্থান পুনঃনির্ধারণের দাবিতে জাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

জাবি প্রতিনিধি:  ‘খেলার মাঠ ও প্রাকৃতিক পরিবেশ ধ্বংস করে অপরিকল্পিত ভবন নির্মাণ বন্ধের দাবিতে’ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের শিক্ষার্থীদের ব্যানারে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে এ দাবি জানানো হয়। সোমবার সকাল ১২ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরাতন রেজিষ্ট্রার ভবনের সামনে ব্যানার-ফেষ্টুন হাতে হলের স্থান পুনঃনির্ধারণের দাবি জানান তারা। মানববন্ধনে আরিফ হাসান শাওনের সঞ্চালনায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

 

 

‘মাঠে থাকবে বল,মাঠে কেন হল’,‘হল চাই হল হবে,মাঠ রক্ষা ও করতে হবে’,‘খেলার মাঠ ধ্বংস করে হল নির্মাণ চলবে না’,‘শিক্ষার সাথে সৌন্দর্য্য,জাহাঙ্গীরনগরের ঐশ্বর্য’ এমনসব প্লাকার্ড হাতে নিয়ে একই স্থানে ৩ টি আবাসিক হল নির্মাণের প্রতিবাদ করেছে করেছে শিক্ষার্থীরা। মানবন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের হাতে নেওয়া আবাসিক প্রকল্পের স্থান নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। শিক্ষার্থীদের দাবি একইস্থানে পাঁচ তলা হলের তিন পাশে দশতলা হল কখনোই পরিকল্পিত হতে পারে না।

 

 

 

এছাড়াও নিধারিত স্থানের অসংখ্য গাছ ধংস করাও কাম্য নয়। তাই অবিলম্বে হল নির্মাণের পরিকল্পনা সংশোধন করে বিশ্ব বিদ্যালয়ের অন্যত্র হল নির্মাণের দাবি জানান তারা। অপেক্ষাকৃত কম ক্ষতি হয় এমন স্থানে হল নির্মাণ প্রকল্প স্থানান্তরের দাবি জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪২তম ব্যাচের শিক্ষার্থী অলিউর রহমান সান বলেন, ‘পাঁচ তলা হল ঘিরে দশতলা হল নির্মাণের পরিকল্পনা কোনভাবেই যৌক্তিক নয়। সেখানে সহস্রাধিক গাছ কেটে হল নির্মাণের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। যার ফলে পরিবেশ হুমকির সম্মুখীন হবে। আমরা এভাবে হল নির্মাণ চাইনা।

 

 

বিশ^কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের আশেপাশে শুধু নয় বিশ্ববিদ্যালয়ের যেকোন স্থানে অপরিকল্পিত ভবন নির্মাণ বন্ধ করতে হবে।’ এসময় একই হলের শিক্ষার্থী মাহমুদুর রহমান বলেন, ‘আমরা জানি হল নির্মাণ করতে গেলে গাছ কাটা পড়বে, উন্নয়নের ক্ষেত্রে আমরা এটা মেনে নেব। কিন্তু অপরিকল্পিতভাবে কেন গাছ কাটা হবে? আমাদের দাবি প্রশাসন যে হল নির্মাণের কাজ শুরু করেছে এটা পুর্নবিবেচনা করা হোক।’ এছাড়া শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের সুষ্ঠু বাস্তবায়ন, খেলার মাঠ তৈরি, হলের ডাইনিং এবং ক্যান্টিন চালুর দাবি জানান।

 

 

উল্লেখ্য, ১৪ শত ৪৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘‘জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকতর উন্নয়ন’’ প্রকল্প নামক মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে কর্মসূচি শুরু করেছে বিশ্ববিদালয় প্রশাসন। এ উন্নয়ন প্রকল্প’র অধীন ছয়টি হল নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। গত ৩০ জুন উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম, দশতলা বিশিষ্ট পাঁচটি হলের নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেন।

 

 

ছাত্রদের তিনটি হল বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের উত্তর, দক্ষিণ ও পূর্ব পাশে নির্মাণের জন্য ভিত্তিপ্রস্তর নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের দক্ষিণ পাশে টারজান পয়েন্ট সংলগ্ন স্থানে ছাত্রীদের দুটি হল নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। এরপর থেকেই হল নির্মাণের স্থান নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়েল শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com