সোমবার, ১৯ অগাস্ট ২০১৯, ০১:৫৮ পূর্বাহ্ন

টাইগারদের টানা পরাজয়ের কারণ শোনালেন তামিম

টাইগারদের টানা পরাজয়ের কারণ শোনালেন তামিম

চলমান তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম দুটি ম্যাচে টানা হেরেছে টিম বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে ৯১ রানের বিশাল ব্যবধানে হারে খালেদ মাহামুদ সুজনের শিষ্যরা। এই ম্যাচে অবশ্য ব্যাটসম্যান-বোলারদের ব্যর্থতায় ফের হারের মুখ দেখে টাইগাররা।

তবে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে টাইগারদের সামনে ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ ছিল। তবে সেই আশায় গুঁড়েবালি। আগের দিনের মতো দ্বিতীয় ম্যাচেও বিবর্ণ পারফরম্যান্স দেখা টাইগারদের।

তাদের এই বাজে ধারাবাহিকতা বজায় থাকার কারণে দ্বিতীয় ম্যাচেও হারের মুখ দেখে বাংলাদেশ। দিনশেষে স্বাগতিক লঙ্কার বিপক্ষে সফরকারী বাংলাদেশ ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে পরাজিত হয়। এতে সিরিজের ২-০ তে এগিয়ে আছে লঙ্কানরা।

ফলে এক ম্যাচ বাকি থাকতেই তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজ জিতলো শ্রীলঙ্কা। আর এমন লজ্জাজনক হারের জন্য দলের প্রত্যেকের প্রচেষ্টার অভাবকেই দুষছেন ক্যাপ্টেন তামিম ইকবাল।

ম্যাচ শেষে টাইগারের এ নয়া দলপতি গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা ম্যাচপূর্ব গুরুত্বপূর্ণ টসটা জিতেছিলাম। জানতাম উইকেটে স্পিন ধরবে। আমাদের একটা ভালো শুরু দরকার ছিল। কিন্তু ৫০ রানে ৪ উইকেট হারানোর পর ভালো কিছু করা সম্ভব নয়।

তামিম আরও বলেন, কেবল বাজে ব্যাটিংই নয়, বোলিং নিয়েও চিন্তিত আমরা। বোলাররা যেভাবে বোলিং করেছে, তাতে ৩০০ রানও যথেষ্ট হত না।

এদিকে এবারের শ্রীলঙ্কা সফরে দলের গুরুত্বপূর্ণ চার সদস্য মাশরাফি, সাকিব, সাইফউদ্দিন ও লিটন না থাকায় তাদের অভাবটা খুব ফিল করছেন নয়া এ অধিনায়ক। পাশাপাশি বিশ্বকাপসহ টানা ক্রিকেট খেলায় দলের সদস্যদের বিশ্রামের ঘাটতিকেও বড় কারণ হিসেবে দেখছেন তামিম।

দেশ সেরা এ ওপেনার বলেন, এ সফরে দলের চার গুরুত্বপূর্ণ সদস্য মাশরাফি, সাকিব, সাইফউদ্দিন ও লিটন নেই। তার ওপর অন্য যারা আছে, বেশিরভাগই ক্লান্ত। খারাপ করার এটাও একটা কারণ হতে পারে।

আসলেই কলম্বোর প্রেমাদাসায় সিরিজ বাঁচানোর ম্যাচে দেখা যায়নি দুর্দান্ত সেই বাংলাদেশকে। বরং তামিমের দলকে মনে হয়েছে আরও ভঙ্গুর, পথ হারা! সেটা ব্যাটিং বোলিং—দুই বিভাগেই।

সাকিব, মাশরাফি, সাইফউদ্দিন, লিটনসহ সিনিয়র ক্রিকেটারদের উপস্থিতিতে এমন ভঙ্গুর, খেই হারা অবস্থা নিকট অতীতে কখনই দেখা যায়নি। বরং পঞ্চপাণ্ডবের উপস্থিতে দুর্দান্ত এক বাংলাদেশকেই চিনেছে ক্রিকেট বিশ্ব।

তাই এ বিষয়টি একদিকে যেমন অতিব গুরুত্বপূর্ণ, তেমনি হতাশারও বটে। কেননা, পঞ্চপাণ্ডব আজীবন থাকবেন না। তাই এখনই বিসিবিসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে তাদের বিকল্প খুঁজে বের করতে হবে। সেটা হতে হবে দেশের ভবিষ্যৎ ক্রিকেটের স্বার্থেই। তা না করতে পারলে, এভাবেই হয়ত একের পর হতাশার গল্প লেখা হবে বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে। যা কখনই কাম্য নয় কোটি কোটি টাইগার ভক্ত-সমর্থকদের।

এদিকে হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর লক্ষ্যে আগামী ৩১ জুলাই সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে মাঠে নামবে টাইগাররা। কলম্বোর রনসিংহ প্রেমাদাসায় স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বেলা ৩ টায়। বিটিভি, মাছরাঙাসহ অনলাইনেও দেখার সুযোগ থাকবে ম্যাচটি দেখার।


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com