সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৪:০০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর সাপাহারে কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত নওগাঁয় জেলা পর্যায়ে ৪৮তম আন্ত:স্কুল ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন রাণীনগরে গভীর নলক’পে বিদ্যুৎ সংযোগ না পাওয়ায় হুমকির মুখে কয়েকশত বিঘা জমির আবাদ ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুরে খাল খননের ফলে তলিয়ে যাচ্ছে ব্রীজ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হতে পারে ১০টি গ্রাম শাহরুখ নিজেই পোস্ট করলেন ‘মন্নত’এর গণেশ পুজোর ছবি অবৈধভাবে সাগরপথে মালয়েশিয়ায় পালানোর সময় ১৬ রোহিঙ্গা আটক আফগানিস্তানকে ২-১ গোলে হারিয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন ডিসেম্বরে নাটোরে ট্রেনে কাটা পড়ে যুবক নিহত

কাশ্মীর প্রশ্নে বিশ্ব নীরব কেন, প্রশ্ন ইমরান খানের

কাশ্মীর প্রশ্নে বিশ্ব নীরব কেন, প্রশ্ন ইমরান খানের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারত-প্রশাসিত কাশ্মীরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর পদক্ষেপ একটি ‘কৌশলগত ভুল’ যার জন্যে চমর মূল্য দিতে হবে মোদিকে। এমন একটি পদক্ষেপের পরও কাশ্মীর সঙ্কট নিয়ে বিশ্ববাসী নীরব কেন, প্রশ্ন করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এ অঞ্চলে মুসলমানদের ‘জাতিগতভাবে নির্মূল’ করতে চাইলে মুসলিম বিশ্বে চরম প্রতিক্রিয়া তৈরি হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (১৫ আগস্ট) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে এক বার্তায় এসব কথা বলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা রদ এবং সেখানে কারফিউ জারি ও সব ধরণের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করার ১২তম দিনে এ মন্তব্য করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার ভারতের স্বাধীনতা দিবস। কাশ্মীরে ভারত সরকারের ‘মানবাধিকার লঙ্ঘন’ ও ‘নির্মমতা’ চালানোর প্রতিবাদে পাকিস্তান জুড়ে দিনটি কালো দিবস হিসেবে পালিত হচ্ছে।

মোদী সরকারের সমালোচনা করে টুইটারে ইমরান খান লেখেন, ভারতের দখলকরা কাশ্মীরে কারফিউর ১২তম দিন। ইতোমধ্যেই সেনা অধ্যুষিত ওই এলাকায় আরও সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। পুরো এলাকা সম্পূর্ণ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন- এর সঙ্গে রয়েছে অতীতে গুজরাটে মোদীর জাতিগতভাবে মুসলিম নিধনের উদাহরণ।

‘বিশ্ববাসী কী নীরব থেকে কাশ্মীরে (বসনিয়া ও হার্জেগোভেনিয়ার) স্রেব্রেনিকার মতো আরেকটি মুসলিম নিধন দেখতে চায়? আমি আন্তর্জাতিক মহলকে হুঁশিয়ার করতে চাই, যদি তাই হয়, তাহলে মুসলিম বিশ্বে তা তীব্র প্রতিক্রিয়া তৈরি করবে। আর এতে করে মৌলবাদ ও সহিংসতার নতুন অধ্যায়ের সূচনা হবে।’

গত সপ্তাহে জাতীয় নিরাপত্তা কমিটির এক বৈঠকে পাকিস্তানে ১৫ আগস্টকে কালো দিবস হিসেবে পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকার দ্বারা স্বায়ত্তশাসিত কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা রদ ও ওই অঞ্চলকে দুই ভাগ করার প্রতিবাদে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কাশ্মীর দখল ও ওই এলাকায় সংকট সৃষ্টির জন্য ভারতকে তীব্র নিন্দা জানায় পাকিস্তান।

এর আগে বুধবার (১৪ আগস্ট) পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবসে ভারত অধ্যুষিত কাশ্মীরিদের সংগ্রামে সংহতি প্রকাশ করেন ইমরান খান।

এদিন এক ভাষণে তিনি বলেন, যেহেতু কাশ্মীরিরা লড়াকু ও মরতে ভীত নয়, সেহেতু মোদীর ওই অঞ্চল দখলের স্বপ্ন দেখা বৃথা। ভারত বীর কাশ্মীরিদের পরাধীন করে রাখতে পারবে না। ইমরান খান এ সময় জার্মানির নাৎসি বাহিনী এবং ভারতের বিজেপি ও রাষ্ট্রীয় সেবক সংঘ (আরএসএস) একই বৈশিষ্ট্যের অধিকারী বলে মন্তব্য করেন।


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com