মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৫:৪৩ পূর্বাহ্ন

“বাকের ভাই” ও “ব্লাক ডায়মন্ড” কে নিয়ে উৎফুল্ল নীলফামারীর ভোটাররা

নিজস্ব প্রতিবেদক ::নিজ নিজ ক্ষেত্রে তারা দুজনই তারকা। প্রত্যাশা আর প্রাপ্তির ঝুড়িতে জমেছে অনেক। একজন নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের সাড়া জাগানো এক নাটকের ‘বাকের ভাই’ খ্যাত আসাদুজ্জামান নূর, অন্যজন কোকিল কণ্ঠের সুবাদে ব্ল্যাক ডায়মন্ড খেতাব পাওয়া বেবী নাজনীন।

সাংস্কৃতিক জগতে দুজন দুই মেরুর হলেও রাজনীতি তাদের এক কাতারে দাঁড় করিয়েছে। তবে আসাদুজ্জামান নূর নাটকের মঞ্চের মতো নির্বাচনী রাজনীতিতেও ইতিমধ্যে সফল। ব্লাক ডায়মন্ড বেবী নাজনীনের যাত্রা সবে শুরু হলো।

১৯৯৮ সালের গোড়ার দিকে নীলফামারীর রাজনীতিতে যুক্ত হন কলেজজীবনে ছাত্র ইউনিয়নের তুখোড় বক্তা আসাদুজ্জামান নূর। দেশসেরা আবৃত্তিকার ও নাট্যাভিনেতা, মঞ্চ মাতানো আসাদুজ্জামান নূরের সেই থেকে পথচলা। ২০০১ থেকে টানা নীলফামারী-২ (সদর) আসনের এমপি তিনি। সবার কাছে সমান জনপ্রিয়। আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক গণ্ডি পেরিয়ে সদালাপি হাসোজ্জ্বল সাদামাটা ব্যক্তি ইমেজ তাকে পাকাপোক্ত করেছে নীলফামারী জেলার রাজনীতিতে। এবারও দলের প্রার্থী তিনি।

ভিন্ন দলে হলেও এবার জেলার রাজনীতিতে ভাগ বসাতে আটঘাট বেঁধে নেমেছেন ‘এলোমেলো বাতাসে উড়িয়েছি শাড়ির আঁচল’-এর শিল্পী বেবী নাজনীন। তার জন্মভূমি অবাঙালি অধ্যুষিত উপজেলা সৈয়দপুর ও কিশোরগঞ্জ নিয়ে গঠিত নীলফামারী-৪ আসনে ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করছেন।

বেবীকে নিয়ে নতুন করে ভাবতে শুরু করেছে বহু গ্রুপে বিভক্ত এলোমেলো সৈয়দপুর বিএনপি। তবে ‘এলোমেলো বাতাসে’-এর শিল্পীর আগমনে উৎফুল্ল নেতাকর্মীরা। তাকে নিয়ে জনমনেও ব্যাপক কৌতূহল।


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com