মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৬:৫৪ পূর্বাহ্ন

রাঙ্গামাটির ডিসি মামুনের সেবার দরজা খোলা

রাঙ্গামাটির ডিসি মামুনের সেবার দরজা খোলা

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাঙ্গামাটির ডিসি মামুনের সকল সেবার দরজা খোলা, রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে গণ শুনানীর মধ্যে দিয়ে বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের জন্য নিরলসভাবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক একে এম মামুনুর রশীদ। শুধু চেষ্টাই নয়, প্রতিদিনই  সমাধান করছেন সাধারণ মানুষের নানা রকম সমস্যার। তেমনী পার্বত্য রাঙ্গামাটি জেলার আর্থ সামাজিক উন্নয়নে কাজও করে যাচ্ছেন তিনি।

 
প্রতি বুধবার রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে গণশুনানীতে দূর্গম এলাকা ও হতদরিদ্র সাধারণ মানুষদের বিভিন্ন সমস্যার যেমন সমাধান করছেন তেমনি বিভিন্ন স্কুল কলেজের ছেলে মেয়েদেরকে শিক্ষা উপকরণ নগদ অর্থ, চিকিৎসা সহায়তা, ঔষধ বিতরণ, মেয়ের বিয়ের জন্য আর্থিক অনুদানসহ বিভিন্ন সমস্যা নিরসন করে যাচ্ছেন।

এছাড়াও দূর্গম পাহাড়,  ছরা পেরিয়ে স্কুল পরিদর্শনে যাওয়া, ঘুর্ণিঝড়ের প্রভাবে বৃষ্টিপাতের ফলে পাহাড় ধসসহ নানা প্রাকৃতিক দৃর্যোগ মোকাবেলায় রাত বিরাত জীবেন ঝুঁকি নিয়ে চলাফেরা করা,  উন্নয়মূলক নানা কাজের মধ্য দিয়ে রাঙ্গামাটি বাসীরমনে জায়গা করে নিয়েছেন জেলা প্রসাশক একে এম মামুনুর রশিদ।

 


তিনি আধুনিক জন প্রশাসনকে আরও গতিশীল ও জনমুখী করতে জনগণের সমস্যা সম্ভাবনা নিয়ে কথা বলছেন। সপ্তাহের অন্যান্য দিনের সাক্ষাৎ ছাড়াও প্রতি বুধবার দিনব্যাপী জেলা প্রশাসক জনগণের অভাব, অভিযোগ, আবেদন, নিবেদন শুনছেন এবং তাৎক্ষণিকভাবে নিষ্পত্তিযোগ্য বিষয়সমূহ নিষ্পত্তি করে জনগণকে সেবা প্রদান করছেন। এছাড়াও টেলিফোনে, ভিডিও বা লিখিতভাবে বিভিন্ন দপ্তর/ব্যক্তির সাথে যোগাযোগ করে জনগণের অভাব, অভিযোগ, আবেদন, নিবেদন নিষ্পত্তির কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।


তেমনি বুধবার (৫ ডিসেম্বর) রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে গণশুনানিতে প্রায় ২৫টির মতো আবেদনের গণশুনানী করেন। এ সময় তিনি ২৫ জনের সমস্যা এবং অভিযোগ শুনেন। বেশ কয়েকটি সমস্যা তিনি নিরসনের জন্য কয়েকজন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব প্রদান করেন। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি ও এইচ.এস.সি পরীক্ষার ফরম পূরণের জন্য আর্থিক অনুদান প্রদান করেন এবং ডাক্তারি ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী ঔষধ বিতরণ ও চিকিৎসা সহায়তা হিসেবে আর্থিক সহায়তা প্রদানসহ অন্যান্যদের সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস প্রদান করেন।


এসময় তিনি বলেন, মন্ত্রী সভায় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রত্যেকটি জেলায় জেলা প্রশাসকগণ বুধবারের গণশুনানী করা হয়। গণগুনানীর উদ্দেশ্যে হলো প্রত্যন্ত অঞ্চলের বিভিন্ন এলাকা থেকে সাধারণ মানুষ যারা জেলা প্রশাসকের কাছে আসতে পারে না তারা একটা দিন তাদের জন্য আমরা সময় রেখে দিই। ঐদিন তাদের বিভিন্ন আবেদন, নিবেদন, জায়গা জমি নিয়ে সমস্যাসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তারা আসেন। এই দিনটা আমরা প্রশাসনিক অন্যান্য কাজ থেকে বিরত থাকি। তাদের কথাগুলো আমরা মনোযোগ সহকারে শুনি এবং তাদেরকে তাৎক্ষণিক আমরা প্রতিকার দিয়ে থাকি।

 

যেগুলো তাৎক্ষণিক প্রতিকার দেয়া সম্ভব হয় না সেগুলো সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কাছে পাঠিয়ে দিই। সেইটা আবার আমরা পরবর্তীতে ফলোআপ নিই যাতে করে আজকে যে শুনানি করেছি তা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা করেছে কিনা সেটা আমরা রেজিষ্টার দেখি কার কাছে আবেদনটি গিয়েছিল সেই কি করেছে এবং সমস্যার নিষ্পত্তি হয়েছে কিনা। এটার উদ্দেশ্য হলো জনগণ যাতে তাদের সেবা ও সমস্যা যাতে করে আমরা সমাধান করতে পারি এবং আমাদের প্রশাসনের উদ্দেশ্য জনগণের দৌড়গোড়াই সরকারী সেবা পৌছে দেয়া এইটা একটা উদ্দেশ্যে।


তিনি আরো বলেন, রাঙ্গামাটির দূর্গম এলাকা থেকে যারা আসতে পারে না তাদের সাথেও আমি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কথা বলার প্রচলন শুরু করেছি। ইতিমধ্যে দূর্গম বিলাইছড়ির সাথে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের সমস্যা সমাধান করতে সক্ষম হয়েছি। তবে দূর্গম এলাকা হওয়ায় নেটওয়ার্কের সমস্যার কারণে সঠিক ভাবে করতে পারছিনা। তবে আমরা স্কাইপি’র মাধ্যমে মোবাইল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে আমরা করবো। এছাড়া আমি যে কোন উপজেলাতে গেলে ঐদিন সাধারণ জনগণের জন্য একটা সময় রাখি সেখানে আমার সাথে কথা বলে এবং তাদের কথাগুলো শুনে আমরা প্রয়োজনী ব্যবস্থা গ্রহন করি।


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com