শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ০৩:২৪ অপরাহ্ন

মেয়রের প্রথম স্বাক্ষর ৭৫২ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্পে

মেয়রের প্রথম স্বাক্ষর ৭৫২ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্পে

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন প্রথম কর্মদিবসে প্রথম স্বাক্ষর করেছেন ৭৫২ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্পে। রোববার সকালে নগর ভবনে গিয়ে তার দপ্তরে বসে প্রথম দাপ্তরিক কাজ করেন মেয়র লিটন।

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল ইসলাম বলেন, মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন তার প্রথম কর্মদিবসে প্রথম স্বাক্ষর করেছেন ৭৫২ কোটি টাকার একটি উন্নয়ন প্রকল্পে। এ উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় নগরীর ২২টি পুকুর সংরক্ষণ ও সংস্কার করা হবে।

প্রকৌশলী আশরাফুল ইসলাম বলেন, আগের মেয়াদে খায়রুজ্জামান লিটন মেয়র থাকাকালে এ প্রকল্পটি তিনি হাতে নিয়ে ছিলেন। কিন্তু সাবেক মেয়র এ প্রকল্পটি আর এগুতে দেননি। ফলে এ প্রকল্পটির ফাইল আগে থেকেই প্রস্তুত ছিল। প্রথম কর্মদিবসে মেয়র সে ফাইলটিতে স্বাক্ষর করে অনুমোদন দিয়েছেন। এখন অর্ধ বরাদ্দের জন্য ফাইলটি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ে পাঠানো হবে বলে জানান রাসিকের এই কর্মকর্তা।

গত শুক্রবার বিকেলে নগর ভবনের গ্রীণ প্লাজায় জাকজমক পুর্ন আয়োজনের মাধ্যমে মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণ করেন এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। এসময় রাসিকের ৩০ জন সাধারণ কাউন্সিলর ও ১০ জন নারী কাউন্সিলরও দায়িত্বগ্রহণ করেন। শনিবার ছুটির দিকে মেয়র লিটন নগর ভবনে গিয়ে বিভিন্ন দপ্তর পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি রাসিক কর্মকর্তা-কর্মচারিদের সঙ্গে শুভেচ্ছা ও মতবিনিময় করেন।

গত ৩০ জুলাই রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলকে বিপুল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে মেয়র নির্বাচিত হন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। গত ৫ সেপ্টেম্বর গণভবনে মেয়র লিটনকে শপথবাক্য পাঠ করান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রশাসনিকভাবে অভিজ্ঞ ও ডাইনামিক ব্যক্তিত্ব হিসেবে পরিচিত মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন নির্বাচনের আগে গ্যাস সংযোগের মাধ্যমে গার্মেন্ট শিল্প স্থাপন, অর্থনৈতিক জোন প্রতিষ্ঠা এবং বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্ক স্থাপনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। এছাড়া রেশম কারখানা ও টেক্সটাইল মিল পুরোদমে চালু, রাজশাহী জুটমিল সংস্কার, কৃষিভিত্তিক শিল্প স্থাপন এবং কুটিরশিল্পের সম্প্রসারণের মাধ্যমে আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টির প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

এছাড়াও নগরীর চারদিকে রিংরোড ও লেক নির্মাণ, পুকুর সংরক্ষণ ও সংস্কার, নগরীর গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলোয় ফ্লাইওভার ও ওভারপাস নির্মাণ, পর্যটনবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপনের প্রতিশ্রুতি রয়েছে লিটনের। এছাড়া নগরীর প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি করে খেলার মাঠ, স্বাস্থ্যকেন্দ্র এবং মাতৃসদন স্থাপনেও তার অঙ্গীকার রয়েছে। নিম্ন আয়ের মানুষের বসবাসের জন্য বহুতল ফ্ল্যাট নির্মাণ করে সহজ কিস্তিতে মালিকানা দেয়ারও তিনি প্রতিশ্রুতি দেন নির্বাচনী ইশতেহারে।

যোগাযোগের উন্নয়নেও লিটনের পরিকল্পনা গগণচুম্বী। তিনি প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন রাজশাহী-ঢাকা বিরতিহীন ট্রেন এবং রাজশাহী-কলকাতা ট্রেন ও বিমান চালুর। এছাড়া শুকিয়ে যাওয়া পদ্মায় ড্রেজিং করে নৌ-চলাচল এবং নতুন নতুন সড়ক নির্মাণের প্রতিশ্রুতি রয়েছে তার। এছাড়াও লিটনের স্বপ্ন রয়েছে পদ্মার চরে রিভার সিটি গড়ে তোলার। তার দেয়া এ সব প্রতিশ্রুতি এক এক করে বাস্তাবায়ন করবেন বলে মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর একাধিকবার বলেছেন রাজশাহীর স্বপ্নের এই ফেরিওয়ালা।


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com