বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:৫৫ পূর্বাহ্ন

রাজশাহীতে “উপহার” সিনেমা হল না ভাঙ্গতে তরুন সংগঠন ইয়্যাসের আহবান

নিউজ ডেক্সঃ ‘উপহার’ সিনেমা হল। ১৯৮৫ সালে রাজশাহীর নিউমার্কেট এলাকায় নির্মিত হয়েছিল এটি। যা এতগুলো বছর সবেধন নীলমনি হয়ে ছিল রাজশাহীর মানুষের কাছে। রাজশাহী মহানগরীর একমাত্র ও সর্বশেষ সিনেমা হল ‘উপহার’। ঈদ, পূজা ও বিভিন্ন অনুষ্ঠানে মানুষ পরিবার-পরিজন নিয়ে এ হলে আসত সিনেমা দেখতে। কিন্তু এই অবশিষ্ট সিনেমা হলটিও এবার বন্ধ হয়ে যাচ্ছে! আগামী ১২ অক্টোবর (শুক্রবার) থেকে এই সিনেমা হলের রূপালি পর্দায় আর কোনো চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হবে না। মালিকপক্ষ হলের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের তা জানিয়ে দিয়েছেন। এমন তথ্য বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচার প্রকাশিত হয়েছে এবং এখন হচ্ছে। যা নজরে এসেছে রাজশাহীর তরুণ সংগঠন ইয়্যাস (ইয়ুথ এ্যাকশন ফর সোস্যাল চেঞ্জ)’র। যাতে করে মর্মাহত হয়েছে ইয়্যাস পরিবার।
তরুণ সংগঠন ইয়্যাস এর পক্ষ থেকে রোববার সন্ধ্যায় সংগঠটির সভাপতি শামীউল আলীম শাওন এবং সাধারণ সম্পাদক নাজমুল ইসলাম আকাশ যৌথ স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে যে, রাজশাহী মহানগরীতে প্রেক্ষাগৃহ ছিল মোট ছয়টি। এগুলোর মধ্যে উপহার সিনেমা হলটিই এখনও বেঁচে আছে সিনেমাপ্রেমী কিছু দর্শকপ্রিয়তায়। আর বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম প্রেক্ষাগৃহটি ছিল রাজশাহীর ‘বর্ণালী’ সিনেমা হল। এর আসন সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৩৭৩। বতর্মানে ওই হলেরও কোনো অস্তিত্ব নেই। অনেক আগেই ভেঙে ফেলা হয়েছে। মালিকের অনেক চেষ্টায় শেষ রক্ষা হয়নি মহানগরীর উপকণ্ঠে থাকা ‘রাজতীলক’ সিনেমা হলটি। দর্শক খরায় ২০১৪ সালে হলটি বন্ধ হয়ে যায়। এছাড়া ‘স্মৃতি’, ‘লিলি’ ও ‘উৎসব’ প্রেক্ষাগৃহ ভেঙে ফেলা হয়েছে। এগুলোর কিছুই আর অবশিষ্ট নেই। কিন্তু ঐহিত্যের স্বাক্ষর হিসেবে থাকা উপহার সিনেমা হলটিও ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। যা সত্যিই হতাশার খবর। এমন খবরে ইয়্যাস পরিবার মর্মাহত।
বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে যে, নগরীর জনপ্রিয় সিনেমা হলগুলোর মধ্যে স্মৃতি, উৎসব, বর্ণালী, লিলি ও উপহার সিনেমা হলের নামে এখনও এলাকার মোড়গুলোর নামকরণ রয়ে গেছে। নেই শুধু সিনেমা হলগুলোই। একে একে কালের গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। শহরের একমাত্র উপহার সিনেমা হলটিতে সারাবছরই দর্শক সমাগম হতো। একসময় বিনোদনের মূল মাধ্যম ছিল সিনেমা হল। রাজশাহীতে কোনো সিনেপ্লেক্সও গড়ে ওঠেনি। এটা বন্ধ হলে সমাজের একটি বড় অংশ বিনোদনবঞ্চিত হবে। আর ঐতিহ্য ধ্বংস হবে। তাই সিনেমা হলের ঐতিহ্য রক্ষার স্বার্থে হলেও উপহার হলটি ঠিকিয়ে রাখা উচিৎ। সেই জন্য সিনেমা হল কর্তৃপক্ষকে ঐতিহ্য রক্ষার স্বার্থে হলটি না ভাঙ্গতে আহবান জানাচ্ছি। এছাড়াও ঐহিত্যবাহী উপহার সিনেমা হলটি রক্ষায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে সরকারের কাছে দাবিও জানানো হয়েছে বিবৃতিতে।সংবাদ বিজ্ঞপ্তি


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com