বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ১২:১০ অপরাহ্ন

চেয়ারম্যান-মেম্বারের দ্বন্দ্ব, গোদাগাড়ীর মাটিকাটা ইউপিতে উত্তেজনা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১২ এপ্রিল, ২০২২
চেয়ারম্যান-মেম্বারের দ্বন্দ্ব, গোদাগাড়ীর মাটিকাটা ইউপিতে উত্তেজনা

রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার মাটিকাটা ইউনিয়ন পরিষদে উত্তেজনা চলছে। পরিষদের চেয়ারম্যান সোহেল রানার সঙ্গে ইউপি সদস্য সেতাবুর রহমানের চরম দ্বন্দ্বে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে বলে জানা গেছে।

ঘটনা নিয়ে দুপক্ষই রাজশাহী জেলা প্রশাসকের কাছে অভিযোগ দিয়েছেন। জেলা প্রশাসক ঘটনাটি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন জেলা প্রশাসনের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালককে।

মাটিকাটা ইউপি সচিব ও কয়েকজন সদস্যের অভিযোগে জানা গেছে, ইউপি সদস্য সেতাবুর রহমান সম্প্রতি একটি মেয়ের জন্মনিবন্ধনে বয়স সংশোধনের জন্য কাগজপত্র জমা দিয়েছিলেন। সম্ভব নয় বলে ইউপি চেয়ারম্যান সোহেল সেটি করতে অস্বীকার করেন। এ নিয়ে চেয়ারম্যান ও মেম্বারের মধ্যে দ্বন্দ্ব প্রকট হয়ে ওঠে।

চেয়ারম্যান পক্ষের দেওয়া অভিযোগমতে, ৮নং ইউপি সদস্য সেতাবুর রহমান ৬ এপ্রিল পরিষদ ভবনে প্রবেশ করে ইউপি সচিব সাব্বির হোসেনকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করেন এবং প্রাণে মারার হুমকি দেন। তবে ইউপি সদস্য সেতাবুর অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

অন্যদিকে সদস্য সেতাবুর রহমান জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ করে বলেছেন, ইউপি সচিব সাব্বির হোসেন জন্মনিবন্ধন সার্ভারের সরকারি পাসওয়ার্ড বাইরের দোকানে দিয়ে রেখে ব্যবসা করছেন। এ ক্ষেত্রে চেয়ারম্যান সোহেলের মদত রয়েছে।

সেতাবুর রহমান আরও বলেন, ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের পাসওয়ার্ড বাইরের কোনো কম্পিউটারের দোকানে দেওয়ার নিয়ম নেই এবং এটা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। ইউপি সচিব কম্পিউটারের দোকানে পাসওয়ার্ড দিয়ে অবৈধভাবে টাকা কামাই করছেন। ৬ এপ্রিল তিনি এসব কাজেরই প্রতিবাদ করতে গিয়েছিলেন। সচিবের এই অপকর্মের রহস্য ফাঁস হয়ে যাওয়ায় মারধরের হুমকির মিথ্যা অভিযোগ করছেন।

সেতাবুর রহমান অভিযোগে বলেন, চেয়ারম্যান ও সচিব মিলে তার ওয়ার্ডে কোনো কাজ দিচ্ছেন না। তার এলাকাকে বঞ্চিত করছেন। বিভিন্ন সরকারি সুবিধা বণ্টনেও তার এলাকাকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। এসব নিয়ে চেয়ারম্যানের সঙ্গে তার টানাপোড়েন চলছে। চেয়ারম্যান ও সচিব মিলে তাকে অতীতে কয়েকবার হেনস্থা করার চেষ্টা করেছেন। তিনি এসবের প্রতিবাদ করেছেন মাত্র।

অভিযোগ প্রসঙ্গে মাটিকাটা ইউপি চেয়ারম্যান সোহেল রানা বলেন, সদস্য সেতাবুর রহমান শুরু থেকেই অসহযোগীতা করে আসছেন। ঘটনার দিন সচিবের কক্ষে ঢুকে তাকে মারধরের হুমকি দিয়েছেন। এ জন্য অন্যান্য ইউপি সদস্য ও সচিব জেলা প্রশাসকের কাছে অভিযোগ দিয়েছেন। ডিজিটাল সেন্টারের পাসওয়ার্ড বাইরের কোনো কম্পিউটারের দোকানে দেওয়া হয়নি বলেও অভিযোগ অস্বীকার করেন তিনি।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
©2014 - 2021. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Theme Developed BY ThemesBazar.Com
%d bloggers like this: