শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ০৮:২৯ পূর্বাহ্ন

এ লড়াই বাঁচার লড়াই, ভোটের লড়াই, গণতন্ত্রের মুক্তির লড়াই–ড.কামাল

নিজস্ব প্রতিবেদক: গণফোরামের সভাপতি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম প্রধান নেতা ড. কামাল হোসেন বলেছেন, ‘আমাদের যে লড়াই, এই লড়াই বাঁচার লড়াই, ভোটের লড়াই, গণতন্ত্রের মুক্তির লড়াই। এ লড়াইয়ে জিততে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘৭ দফাকে হালকাভাবে নেবেন না। এটা অনেক মূল্যবান। এটা জনগণের হারিয়ে ফেলা অধিকার, দেশের মালিকানা ফিরিয়ে আনার দাবি। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল, জনগণ ক্ষমতার মালিক। সেটি বাস্তবায়ন করতে হবে।’সিলেট রেজিস্ট্রারি মাঠে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা ৭ দফা কর্মসূচি দিয়েছি। সংবিধানের ৭নং অনুচ্ছেদে রয়েছে জনগণই দেশের মালিক। কিন্তু বর্তমানে জনগণের সেই মালিকানা নেই। এটা আদায় করে নিতে হবে। আমাদের ১ নম্বর দাবি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন। এর সাথে আরো ৬টি দাবি রয়েছে। এসব দাবির কথা গ্রামে গ্রামে ছড়িয়ে দিতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘দেশের মুষ্ঠিমেয় মানুষের উন্নয়নে উন্নয়ন হয় না। আমরা চাই, ১৬ কোটি মানুষের উন্নয়ন। আমরা ইনশাআল্লাহ বিজয়ী হবো। আমাদের বিজয় অনিবার্য।’ড. কামাল বক্তব্যের শেষপর্যায়ে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিও তুলেন।আজ থেকে গণতন্ত্রের লড়াই শুরু হলো: ফখরুল
সিলেটবাসী অনেক ইতিহাসের জন্ম দিয়েছেন। আজ আরেকটি ইতিহাসের জন্ম দিচ্ছেন। এই ইতিহাস হচ্ছে গণতন্ত্র মুক্তির ইতিহাস।’

সিলেটে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে প্রধান বক্তার বক্তব্যে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আজ থেকে গণতন্ত্রের লড়াই শুরু হলো। খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। ফিরিয়ে আনতে হবে আমাদের অধিকার। গণতন্ত্রকে মুক্ত করতে হবে।

সরকারকে পরিষ্কার করে বলতে চাই, তফসিল ঘোষণার আগে পদত্যাগ করুন। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিন। ইভিএম দেয়া চলবে না।
ডিজিটাল চুরি করতে দেয়া হবে না। নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে হবে।’
তিনি বলেন, ‘সিলেটের মানুষ সকল বাধা বিপত্তি উপেক্ষা করে সমাবেশে ছুটে এসেছে।’ তার আহবানে হাত তুলে সবাই আন্দোলনে শরিক হওয়ার কথা জানান।

এই দেশকে ডাকাতদের হাত থেকে বাচাতে হবে: সিলেটে আব্দুর সমাজতান্ত্রিক দলের সভাপতি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা আ স ম আব্দুর রব বলেছেন, ‘আমাদের যে লড়াই, এই লড়াই বাঁচার লড়াই, ভোটের লড়াই, গণতন্ত্রের লড়াই। এ লড়াইয়ে জিততে হবে।’

বুধবার সিলেট রেজিস্ট্রারি মাঠে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

আব্দুর রব বলেন, ‘দেশ ডাকাতের হাতে পড়েছে। বাঁচাতে চান? খালেদার মুক্তি চান?’ তখন উপস্থিত নেতাকর্মীরা ‘হ্যাঁ’ বলে সায় দেয়।

তিনি আরো বলেন, এই দেশকে ডকাতদের হাত থেকে যদি বাচাতে চান তাহলে আমাদের লড়াই করতে হবে। এই লড়াই বাঁচার লড়াই, ভোটের লড়াই, গণতন্ত্রের লড়াই। এ লড়াইয়ে আমাদের জিততে হবে।

সরকার চোর ডাকাতের মতো ভোট ডাকাতি করছে: মান্না

নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, ‘সরকার চোরের মতো, ডাকাতের মতো ভোট ডাকাতি করছে। সিলেটের মানুষ সাহস দিয়ে, বুদ্ধি দিয়ে, মেধা দিয়ে আরিফুল হক চৌধুরীকে বিজয়ী করেছে।

বুধবার বিকেলে সিলেট নগরীর রেজিস্ট্রারি মাঠে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে নিজের বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এখন জেলে। তিনি নানা রোগে আক্রান্ত। ৭৩ বছর বয়সে তার জেল খাটার কথা না। দেশে কোটি কোটি টাকা লুটপাট হয়েছে। বিচার হয়নি। আমরা সবাই বলছি, তার (খালেদা) মুক্তি চাই। আমরা শপথ নেই, কিভাবে বেগম জিয়াকে মুক্ত করে আনতে পারি।’

‘খালেদা জিয়ার সাথে ডাক্তারও দেখা করতে পারে না’ বলে অভিযোগ করেন মাহমুদুর রহমান মান্না।

সাবেক ডাকসু ভিপি মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, আজ আমাদের শপথ নেয়ার সময়, সিদ্ধান্ত নেয়ার সময়। ভোট যদি হয়, আমরা জিততে পারবো?’ এ সময় নেতাকর্মীরা ‘হ্যাঁ’ বলে জবাব দেয়।

মান্না বলেন, ‘গত বছর নির্বাচনের সময় ঘরে ছিলেন। এবার কোটি কোটি মানুষ ঘর থেকে বেরিয়ে আসবে।’

তিনি বলেন, ‘কেউ যদি পারেন, (এই সমাবেশের) একটি ভিডিও প্রধানমন্ত্রীকে পাঠিয়ে দেবেন। তিনি অবাক হবেন, এতো বাধার পরেও কিভাবে এতো মানুষ হলো সমাবেশে।’

মান্না আরো বলেন, ‘নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগেই আমাদের সাথে কথা বলুন। সিলেটের জনসভা সারাদেশে মানুষের জন্য একটি সিগন্যাল।

আমরা বাঁচার অধিকার চাই, সুন্দর দেশের অধিকার চাই। সারাদেশের মানুষ একদিকে, অন্যদিকে শেখ হাসিনার সরকার একা থাকবে। আমরা লড়াই করবো।’

সরকারকে সমঝোতায় আসতে বাধ্য করা হবে: মওদুদ

বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ বলেছেন, ‘সরকারকে সংলাপে বসতে বাধ্য করা হবে। তাদেরকে সমঝোতায় বসতে বাধ্য করা হবে। যদি সমঝোতায় না আসেন, তবে বুঝতে হবে দেশে গণতন্ত্র চান না। মানুষ এর উপযুক্ত জবাব দেবে।’

বুধবার বিকেলে সিলেট নগরীর রেজিস্ট্রারি মাঠে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে নিজের বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

মওদুদ বলেন, ‘ঘুষ ও দুর্নীতি ছাড়া কোনো কাজ হয় না। বড় বড় দুর্নীতি হয়েছে। এগুলোর বিচার করতে হবে। আমরা ক্ষমতায় গেলে প্রতিটি পয়সার হিসাব নেব। তারা ক্ষমতায় এসে বিদেশে সম্পত্তি করেছে।’ তিনি খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করেন।

ওসমানীকে শ্রদ্ধা জানালেন ডা. জাফরুল্লাহ

সিলেটে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে বক্তব্য প্রদানের শুরুতেই মুক্তিযুদ্ধের প্রধান সেনাপতি সিলেটে কর্ণেল এম এ জি ওসমানীকে স্মরণ ও শ্রদ্ধা জানিয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

নগরীর রেজিস্ট্রারি মাঠে বিকাল সোয়া ৪টার দিকে বক্তব্য শুরু করেন তিনি। ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, ‘এই (ওসমানী) মহান নেতার মূল্যায়ন এখন কেউ করে না। আমি এই সমাবেশ থেকে তাকে শ্রদ্ধা জানাচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘উন্নয়নের জোয়ারে নৌকা টালমাটাল, ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেছে।’

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ‘অন্যায়ভাবে’ কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে মন্তব্য করে জাফরুল্লাহ বলেন, ‘দেশে আইনের সংস্কার প্রয়োজন।’

তিনি বলেন, ‘আমরা যদি বিজয়ী হই, আপনারা যদি সমর্থন করেন, তবে তিন মাসের মধ্যে দেখবেন দেশে ওষুধের দাম অর্ধেক হয়ে গেছে, চিকিৎসা খরচ অর্ধেক হয়ে যাবে।’

ইলিয়াসসহ শত শত ব্যক্তিকে গুম করেছে সরকার: মোশাররফ

বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, ‘ইলিয়াস আলীসহ শত শত ব্যক্তিকে গুম করেছে। তার জবাব দিতে হবে। সব লুটপাটের জবাব দিতে হবে। এজন্য তারা ভয় পায়।’

বুধবার বিকেলে সিলেট নগরীর রেজিস্ট্রারি মাঠে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে নিজের বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। আগামী নির্বাচনের আগে তাকে মুক্তি দিতে হবে। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে এই সরকারকে বিদায় নিতে হবে, সংসদ ভেঙে দিতে হবে। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে। এই পূণ্যভ’মি সিলেট থেকে আন্দোলন শুরু হলো।’

ইলিয়াস আলী ছাত্রলীগের রাজনীতি করতেন: সুলতান মনসুর

আওয়ামী লীগের সাবেক নেতা ও বর্তমানে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা সুলতান মোহাম্মদ মনসুর বলেন, ‘ইলিয়াস আলী ছাত্রলীগের রাজনীতি করতেন। এমসি কলেজে থাকাকালে তিনি আমার অধীনে রাজনীতি করতেন। তিনি ঢাকায় গিয়ে ছাত্রদলে যোগ দেন।’

বুধবার বিকেলে সিলেট নগরীর রেজিস্ট্রারি মাঠে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে নিজের বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

ইলিয়াস আলী বিএনপির সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক। বর্তমানে তিনি ‘নিখোঁজ’রয়েছেন। সুলতান মনসুর ছাত্রবস্থায় ছাত্রলীগের রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন।

সুলতান মনসুর আরো বলেন, ‘সিলেটের মানুষ কোনোদিন মাথা নথ করে হাঁটে না, মাথা উঁচু করে হাঁটে।’

‘যতো দিন বাঁচবো, জনগণের দাবিতে থাকবো’ মন্তব্য করে সুলতান মনসুর জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সাথে থাকার ঘোষণা দেন।

ডু অর ডাই, মাঠে থাকবো: সিলেটে এ্যানি

সিলেটে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে বিএনপির প্রচার বিষয়ক সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি বলেছেন, আমাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। এখন আর পিছিয়ে যাবার রাস্তা নেই। তাই ডু অর ডাই, আমরা মাঠে থাকবো ইন শা আল্লাহ।

বুধবার বেলা ২টা থেকে সিলেটের ঐতিহাসিক রেজিস্ট্রারি মাঠে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ শুরু হয়েছে। সমাবেশে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি একথা বলেন।

ইলিয়াস আলীকে ‘অক্ষত অবস্থায়’ ফেরত চাইলেন লুনা

বিএনপির সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস আলী গেল কয়েক বছর ধরে ‘নিখোঁজ’।ঢাকার বনানী থেকে তিনি ‘নিখোঁজ’ হন। তার অপেক্ষায় রয়েছে পরিবার ও দলীয় নেতাকর্মীরা।

‘নিখোঁজ’ ইলিয়াসকে ‘ফেরত দিতে’ অসংখ্যবার সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছেন তার স্ত্রী তাহসিনা রুশদীর লুনা। এবার আরো একবার এই দাবি জানালেন তিনি।

বুধবার বেলা ২টা থেকে সিলেট রেজিস্ট্রারি মাঠে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ চলছে। এই সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তাহসিনা রুশদীর লুনা।

তিনি বলেন, ‘ইলিয়াস আলীকে অক্ষত অবস্থায় ফিরিয়ে দিতে হবে।’

লুনা আরো বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। দেশ বর্তমানে ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। দেশে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নাই। এটা চলতে পারে না।’


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com