বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:৪৪ পূর্বাহ্ন

উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছে হরিপুর

উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছে হরিপুর

জে.ইতি হরিপুর (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি: উন্নয়নের গণতন্ত্র, শেখ হাসিনার মূলমন্ত্র” শেখ হাসিনার দর্শন, বাংলাদেশের উন্নয়ন” শেখ হাসিনার দর্শন, সব মানুষের উন্নয়ন।ঠাকুরগাঁওয়ের সীমান্তবর্তী উপজেলা হরিপুরে গত কয়েক বছরে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। এতে পাল্টে গেছে সীমান্তবর্তী উপজেলা হরিপুরের চেহারা।উন্নয়নের সুফলও পেতে শুরু করেছে উপজেলাবাসী।

 

হরিপুর উপজেলা পরিষদের নতুন চতুর্থ তলা বিশিষ্ট ভবন নির্মিত হয়েছে ৩ কোটি ৬২ লাখ টাকা ব্যয়ে। রয়েছে উদ্বোধনের অপেক্ষায়। উপজেলার নতুন বাজারে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ২০১৫ সালে ২ কোটি ৩৮ হাজার টাকায় নির্মিত হয়েছে তিনতলা বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ভবন। ২জন অস্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধার জন্য ১৫ লাখ ৮৩ হাজার টাকা ব্যয়ে ২টি পাঁকা বাড়ি নির্মাণ করে দিয়েছেন শেখ হাসিনা সরকার। ফায়ার সার্ভিস ভবন নির্মান করা হয়েছে ২ কোটি ৪০ লাখ টাকা ব্যয়ে। জনবল ও সরঞ্জাম পাওয়া গেলে এটির কার্যক্রম পরিচালনা করবে বলে জানান কর্তৃপক্ষ। উপজেলার প্রাণ কেন্দ্র ২০১৬ সালে গড়ে উঠেছে নিজস্ব কৃষি ভবন।

 

নির্মাণের আশায় ডাকবাংলো ভবন। ২০১৮ সালে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ। হরিপুর উপজেলাবাসীর বিদ্যুতের চাহিদা মিটানোর জন্য কামারপুকুর নামক স্থানে গড়ে উঠেছে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড/পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ৩৩/১১ কে.ভি, ১০ এম.ভি.এ বৈদ্যুতিক উপকেন্দ্র। গরীব বান্ধব শেখ হাসিনা সরকার। ২০১৫ সাল থেকে বর্তমানে গরীব পরিবারের মাঝে ৪ হাজার সৌর বিদ্যুৎ দিয়েছে সরকার। হাট-বাজারগুলোতে বসানো হয়েছে সৌরচালিত ফ্ল্যাশ লাইট। আলোই আলোই আলোকিত হরিপুর উপজেলা ।

উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছে হরিপুর

উপজেলা পরিষদের তামাইদিঘীর পূর্ব পাড়ে ২০১২ সালে নির্মাণ করা হয়েছে মুক্তিযোদ্ধ স্মৃতিসৌধ এবং সন্নিকটে ২০১৭ সালের শেষের দিকে উপজেলাবাসীর জন্য কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার তৈরি করা হয়েছে।এছাড়াও কামারপুকুরে নির্মিত করা হবে বদ্ধভূমি। চলমান রয়েছে ১৪ কোটি ৫২ লাখ টাকা ব্যয়ে ৫ তলা বিশিষ্ট একাডেমিক ভবন ও ৪ তলা বিশিষ্ট প্রশাসনিক ভবনসহ হরিপুর টেকনিক্যালস্কু এন্ড কলেজ।অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তৈরি করা হয়েছে নতুন নতুন ভবন।

 
উপজেলার ৬ টি ইউনিয়নের মধ্যে ৫টি ইউনিয়ন পরিষদে তৈরি করা হয়েছে আধুনিক ভবন। হরিপুর উপজেলায় প্রায় ৫৩ কি.মি দীর্ঘ ৭ টি রাস্তা পাকা করন হয়েছে। উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের ১৬ টি রাস্তার ১০৩ কি.মি’র মধ্যে ৪০ কি.মি পাকা করা হয়েছে। সময়ের অপেক্ষায় রাণীশংকৈল থেকে হরিপুর উপজেলা সদর হাইওয়ে রাস্তা।

 
উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় জনসাধারণের কথা ভেবে প্রচুর পরিমাণে কালভার্ট, ব্রিজ, গ্রামীণ সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে।
বর্তমান সরকার নারী বান্ধব সরকার। নারীদের জন্য তৈরি করা হয়েছে যাদুরানী, ধীরগঞ্জ এবং উপজেলা সদরে মহিলা মার্কেট।
শিশুদের কল্যাণে উদারতার পরিচয় দিয়েছে বর্তমান সরকার। হরিপুরে নির্মাণ করা হচ্ছে শিশুপার্ক। শেখ হাসিনা সরকারের আমলে পেয়েছে উপজেলার প্রায় শত পরিবার টিনসেট ঘর।


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com