বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০১:২২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
রাজশাহীতে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা অনুর্ধ-১৭ জাতীয় ফুটবল টুর্নামেন্ট খেলার উদ্বোধন রাজশাহী রেঞ্জের মাসিক ‘অপরাধ পর্যালোচনা সভা’ অনুষ্ঠিত ইটভাটা ও কলকারখানার দূষিত কালোধোঁয়া পরিস্কারের যন্ত্র আবিস্কার করলেন রুবেল রাজশাহীতে স্বামীর নির্যাতনে ৩মাসের অন্তঃসত্বা গৃহবধূর আত্মহত্যা ষড়যন্ত্র রুখতে ‘অন্যায়ের বিরুদ্ধে এবং উন্নয়নের পক্ষে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে মানববন্ধন বাগমারায় পরীক্ষায় নকলের দায়ে ১১ পরীক্ষার্থী বহিস্কার বাগমারায় আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে সরকারী গাছ কাটার অভিযোগ পুঠিয়ায় ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টায় শিক্ষক গ্রেফতার বাংলাদেশ নির্ভরযোগ্য অংশীদার এডিবি ফাহাদ হত্যা মামলায় সাদাত ৫ দিনের রিমান্ডে

পানির মধ্যে ক্রিকেট অনুশীলন শচিনের

পানির মধ্যে ক্রিকেট অনুশীলন শচিনের

অনুশীলন শুরুর আগেই মুষলধারে বৃষ্টি হয়ে গেলো। মাঠে তো বটেই, পানি জমেছে নেট প্র্যাকটিসের উইকেটেও। শুধু জমে যাওয়াই নয়, থই থই পানি। সেই পানির মধ্যেই দিব্যি ব্যাটিং অনুশীলন চালিয়ে গেলেন ভারতীয় কিংবদন্তি, মাস্টার ব্লাস্টার শচিন টেন্ডুলকার।

সেই অনুশীলনের একটি ভিডিও সম্প্রতি নিজের টুইটার পেজে পোস্ট করেছেন খোদ শচিন নিজেই। ভিডিওটা পোস্ট হতে না হতেই ভাইরাল হয়ে পড়লো। সবার একটাই বক্তব্য, ক্রিকেটের প্রতি কতটা নিবেদন থাকলে, দেশের প্রতি কতটা প্রেম থাকলে এভাবে পানির মধ্যেও অনুশীলন চালিয়ে যায় কেউ!

টুইটারে পোস্ট করা সেই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে পানিতে নিমগ্ন উইকেটে শচিনকে থ্রো ডাউন দিচ্ছেন তার বন্ধুরা। বল পিচে পড়ে পানি ছিটিয়ে দিচ্ছে যা উইকেটের পেছনেও চলে আসছিল।

এর মধ্যেই শচিন কখনও চাবুকের মতো সোজা শট খেলছেন, কখনও আবার ড্রাইভ মারছেন। আবার কখনো কখনো বল বিপজ্জনকভাবে লাফিয়েও উঠছিল। কিন্তু তিনি নির্বিকার। সেই অবস্থাতেই ব্যাট করে চলেছেন নেটে।

শচিনকে শট মারতে দেখে তার বন্ধুরা অবশ্য খুশি হচ্ছিলো না। যখন বলে ব্যাট লাগাতে পারছিলেন না, ডাক করছিলেন, কিংবা ক্যাচ দিচ্ছিলেন, তখনই বন্ধুরা উচ্চস্বরে চিৎকার করছিলেন ও হাসিতে ফেটে পড়ছিলেন। তাদের সঙ্গে শচিনকেও দেখা গেলো হাসতে।

টুইটারে এই ভিডিও পোস্ট করে শচিন লিখেছেন, ‘ক্রিকেটের প্রতি ভালবাসা ও প্যাশন সবসময়ই অনুশীলনের নতুন নতুন পন্থা খুঁজে বের করতে সাহায্য করেছে। আর সবচেয়ে বড় দিক হল, যা করছি তাকে উপভোগ করতে সাহায্য করেছে।’

তবে এই ভিডিও কিন্তু বর্তমান সময়ের নয়। নিশ্চিত, শচিনের খেলোয়াড়ী জীবনের। কারণ, তার গায়ের জার্সিতে ‘সাহারা’ লেখা দেখেই বোঝা যাচ্ছে, এটার তার খেলোয়াড়ি জীবনের। সাহারা এক সময় টিম ইন্ডিয়ার অফিসিয়াল স্পন্সর ছিল।


©2014 - 2019. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com