বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ০৫:০৪ অপরাহ্ন

রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন ৪ ডিসেম্বর

নিউজ ডেস্ক : রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন আগামী ৪ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। বর্তমান কমিটিই এ সম্মেলনের আয়োজন করবে। এ সম্মেলন সমন্বয় করবেন করবেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, রাজশাহী মহানগরের সভাপতি এবং সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। শুক্রবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সাথে রাজশাহীর নেতাদের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

একই সাথে আগামী ৩ মাসের মধ্যে উপজেলা, পৌরসভা ও ইউনিয়নের সম্মেলন করার ঘোষণা দেন কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকদের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, দায়িত্বের পরিবর্তন হবে, পূনর্বণ্টন হবে। এখান থেকে ওখানে যাবে। কেউ তো এক পদে সারাজীবন থাকবে না।

বিতর্কিত ছাড়া আওয়ামী লীগ থেকে কেউ বাদ যাবে না জানিয়ে কাদের বলেন, বিতর্কিতদের বাদ দেয়া হবে। বিতর্কিত ছাড়া কেউ বাদ যাবে না। আওয়ামী লীগে কেউ বাদ যায় না। বিতর্কিত ছাড়া কেউ বাদ যাবে না, দায়িত্বের পরিবর্তন হবে। এখান থেকে ওখানে যাবে।

আওয়ামী লীগ ও সংশ্লিষ্ট অন্য সংগঠনগুলোর আসন্ন জাতীয় সম্মেলনকে সামনে রেখে সব তিক্ততার অবসান ঘটবে আশা প্রকাশ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘জাতীয় সম্মেলনকে সামনে রেখে সব তিক্ততার অবসান ঘটবে। সম্মেলনের যে তারিখ ঘোষণা করা হবে, যে অনুযায়ী সম্মেলন করতে হবে। কাদা ছোঁড়াছুড়ি বন্ধ করতে হবে। আমাদের মধ্যে প্রতিযোগিতা থাকবে, তবে সে প্রতিযোগিতা হবে সুস্থ। অসুস্থ প্রতিযোগিতা কোনো অবস্থায় বরদাশত করা হবে না। এটি আমি নেত্রীর পক্ষ থেকে পরিষ্কার জানিয়ে দিতে চাই।

দলে অনুপ্রবেশকারীদের বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমাদের পার্টিতে যারা আসছেন তারা সবাই অনুপ্রবেশকারী নয়। কারও বিরুদ্ধে যদি সাম্প্রদায়িকতার সংশ্লিষ্টতা না থাকে, কোনো প্রকার মামলা-মোকদ্দমা, কোনো প্রকার অপরাধের সংশ্লিষ্টতা না থাকে তারা অনুপ্রবেশকারী নয়। যাদের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ রয়েছে, যাদের বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক অশুভ শক্তির সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ রয়েছে তাদের আওয়ামী লীগে জায়গা দেয়া হবে না।’

বিএনপির অনেক জ্যেষ্ঠ নেতা দল ছাড়ছে-এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয়, এটা বিএনপি নেতিবাচক রাজনীতির অনিবার্য পরিণতি।’

এ সময় অন্যদের মধ্যে আওয়ামী লীগের রাজশাহী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, ডা. দীপু মনি, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, দফতর সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপ, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, রাজশাহী মহানগরের সভাপতি এবং সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ওমর ফারুক, সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

©2014 - 2019. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com