মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৪:৩৮ অপরাহ্ন

ইসিতে আ.লীগের অভিযোগ,ফকরুল বললেন এতে কারো নাক গলানোর কিছু নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিএনপির মনোনয়ন বোর্ডে তারেক রহমানের অংশগ্রহণের বিষয়ে নির্বাচন কমিশনে লিখিত অভিযোগ দিয়েছে আওয়ামী লীগ।

রবিবার বিকেলে কর্নেল (অব.) ফারুক খানের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধিদল নির্বাচন কমিশনে গিয়ে সিইসি কেএম নুরুল হুদার কাছে এই অভিযোগ দেন তারা।

পরে প্রতিনিধি দলের সদস্য কর্নেল (অব.) ফারুক খান সাংবাদিকদের বলেন, তারেক রহমানের অংশগ্রহণ নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন। এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনে আমরা লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। সিইসি কেএম নুরুল হুদা আমাদের আশ্বস্ত করেছেন যে বিষয়টি তিনি দেখবেন এবং যথাযথ ব্যবস্থা নিবেন।

এর আগে রবিবার দুপুরে রাজধানীতে দলীয় কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিংকালে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি জাতির কাছে বলতে এখন পারি, একজন দণ্ডিত পলাতক আসামি এ ধরনের বক্তব্য দিতে পারে কিনা? জাতির কাছে আমি এর বিচার চাইছি। নির্বাচন কমিশনের কাছেও দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। দুটি মামলায় দণ্ডিত পলাতক এরকম কেউ এভাবে ভিডিও কনফারেন্স করে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে পারে কিনা- আমি সেটি নির্বাচন কমিশনের কাছে জানতে চাইছি।’

এদিকে প্রার্থী বাছাইয়ের সাক্ষাৎকারে তারেক রহমানের ভিডিও কনফারেন্সে অংশগ্রহণ বিএনপির অভ্যন্তরীণ বিষয় বলে মন্তব্য করেছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

রবিবার বিকেল ৫টার দিকে বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

এ সময় নির্বাচন কমিশনের নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে বিএনপি মহাসচিব বলেন, নির্বাচন কমিশন নিজেই আচরণবিধি ভঙ্গ করছে। আমাদের দলের সাক্ষাৎকার কিভাবে নেব এটা আমাদের সিদ্ধান্ত। এতে কারো নাক গলানোর কিছু নেই।

মনোনয়ন প্রত্যাশীদের আপনারা কি নির্দেশনা দিচ্ছেন এমন প্রশ্নের জবাবে ফখরুল বলেন, ‘নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে যেভাবে প্রস্তুতি দরকার সেভাবে প্রস্তুতি নিন। কেন্দ্র পাহারা দিতে হবে। সজাগ থাকতে হবে। এক তরফা নির্বাচনের জন্য যেন কেন্দ্র দখলে নিতে না পারে।’

মহাসচিব বলেন, ‘প্রথমদিনে রংপুর বিভাগে ৩৩ আসনে ১৫৮ জনের সাক্ষাৎকার নেয়া হয়েছে। রাজশাহী বিভাগে ৪১ আসনে ৩৬৮ জনের সাক্ষাৎকার চলছে।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও খালেদা জিয়ার মুক্তির অংশ হিসাবে আমরা নির্বাচনে গেছি। সেই জন্য দলের আনুষ্ঠানিকতার কাজগুলো করছি। আজ আমাদের দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষৎকার গ্রহণ শুরু হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা মনে করছি না অবাধ সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণ মূলক নির্বাচনের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। যে নির্বাচনের জন্য আমরা দীর্ঘকাল আন্দোলন সংগ্রাম করছি। সরকার এক তরফা, একদলীয় নির্বাচন করার পায়তারা করে যাচ্ছে।’

ফখরুল বলেন, ‘২০ দল, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টসহ একটি ফলপ্রসূ ও অর্থবহ নির্বাচনের দাবি সব সময় তুলে ধরছে। আমরা নিজেরাও সংলাপে গিয়েছি।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সমতল ক্ষেত্র এখনো তৈরি হয়নি। সংসদ ভেঙে দেয়া হয়নি। মিডিয়া নিরপেক্ষ ভুমিকা পালন করছে না। বিটিভি, সংবাদ সংস্থা, বেসরকারি গণমাধ্যমগুলো সরকারের তথাকথিত উন্নয়নগুলো প্রচার করছে। নিরপেক্ষতা বজায় রাখছে না। গ্রেফতার বন্ধ হয়নি। বার বার বলার পরও গ্রেফতার চলছে। দুর্ভাগ্য যে এগুলো সুষ্ঠু নির্বাচনের ক্ষেত্রে বড় অন্তরায় হয়ে দাঁড়াবে।’

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘আমরা চাই সুষ্ঠু অবস্থা তৈরি হোক। দলগুলো যে অবস্থায় স্বস্তি ফিল করবে। মামলা মোকদ্দমা বন্ধ করা হোক। বিটিভিকে নিরপেক্ষতা বজায় রাখতে হবে। তথাকথিত উন্নয়ন প্রচার বন্ধ রাখতে হবে। বিরোধী দলের নেতাকর্মীদেরও সমান সুযোগ দিতে হবে। এই বিষয়গুলো ইসিকে জানানো হয়েছে। আরো অন্যান্য বিষয়গুলো জানানো হবে।’


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com