মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৫:৫০ অপরাহ্ন

নির্বাচনের পূর্বে দলে ফেরত সংস্কারপন্থীদের নজরদারিতে রাখতে তারেক রহমানের নির্দেশ

নির্বাচনের পূর্বে দলে ফেরত সংস্কারপন্থীদের নজরদারিতে রাখতে তারেক রহমানের নির্দেশ

নিউজ ডেস্ক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলে ফেরত সংস্কারপন্থী নেতাদের কঠোর নজরদারিতে রাখার জন্য দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে নির্দেশ দিয়েছেন লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। যুক্তরাজ্য বিএনপি নেতা আবদুল মালিকের ঘনিষ্ঠ সূত্রের বরাতে তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত হওয়া গেছে। পাশাপাশি তারেক রহমানও সংস্কারপন্থী নেতাদের বিভিন্ন মারফতে নজরদারিতে রাখছেন বলেও সূত্রটি নিশ্চিত করেছে।

যুক্তরাজ্য বিএনপির নেতা আবদুল মালিকের ঘনিষ্ঠজন ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা আলাল উদ্দিনের মারফত জানা যায়, নির্বাচনের পূর্বে মাঠের বিরোধ ঠেকাতে সংস্কারপন্থীরা দলে ফিরলেও তাদের নিয়ে চরম অস্বস্তিতে রয়েছে দলীয় হাইকমান্ড। কোনোভাবেই সংস্কারপন্থীদের উপর আস্থা রাখতে পারছেন না তারেক রহমান। তারেক বিশ্বাস করেন, সংস্কারপন্থী নেতারা সুযোগ পেলেই দলের সাথে বেইমানি করতে পারে। এছাড়া সারা বছর আন্দোলন-সংগ্রামের সময় আত্মগোপন করে থাকা সংস্কারপন্থী নেতাদের সরব উপস্থিতি মেনে নিতে পারছে না দলের বিভিন্ন স্তরের নেতা-কর্মীরা। নির্বাচনের পূর্বে হঠাৎ সরব হয়ে ওঠা সংস্কারপন্থী নেতা জহির উদ্দিন স্বপন, সরদার সাখাওয়াত হোসেন বকুল, রেজাউল করিম, আতাউর রহমান আঙুর, ইলেন ভুট্টো, রেজাউল বারী ডিনা, মফিকুল হাসান তৃপ্তির মতো নেতাদের দলে ফিরিয়ে নেওয়া হলেও এখনো এসব নেতাদের নিয়ে তারেক রহমান শঙ্কায় আছেন। তারেক রহমান নিজেও জানেন এসব সংস্কারপন্থীরা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সুফল ভোগ করার আশা নিয়ে বিএনপিতে ফিরেছেন। তারেক রহমানের বিশ্বাস, এসব নেতারা বিএনপির নীতি-আদর্শ থেকে কিছুটা হলেও বিচ্যুত। তারা বিভিন্ন সময়ে দলের বিরুদ্ধে অসাংগঠনিক কাজেও লিপ্ত ছিলো। এমন প্রেক্ষাপট থেকে তারা কতটুকু শুধরাতে পেরেছেন তা নিয়েও যথেষ্ট সন্দেহ আছে বিএনপির নেতা-কর্মীদের মধ্যে। কিন্তু দলের সংকটপূর্ণ সময়ে তাদের ফিরে আসা মেনে নিলেও তাদের উপর শতভাগ ভরসা করতে পারছেন না তারেক রহমান। তাই বিভিন্ন সময়ে দলত্যাগ করে পুনরায় ফিরে আসা এসব সংস্কারপন্থী নেতাদের উপর কড়া নজরদারি রাখতে ১৯ নভেম্বর রাতে তারেক রহমান মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামকে নির্দেশ দেন। পাশাপাশি মির্জা ফখরুলকে নির্বাচনের অন্তিম মুহূর্তে এসে সম্ভাব্য কোন্দল দূর করে দলের জন্য সবাইকে কাজ করাতে রাজি করানোরও নির্দেশনা দিয়েছেন তারেক রহমান।

এদিকে বিএনপির নয়াপল্টন পার্টি অফিস সূত্রে জানা যায়, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলে ফিরিয়ে নেওয়া সংস্কারপন্থীরা কোথায় কোথায় যাতায়াত করছেন, কাদের সঙ্গে বসে কথাবার্তা বলছেন, তা পর্যবেক্ষণ করতে ছাত্রদলের বেশ কয়েকজন নেতাকে দায়িত্ব দিয়েছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম। এরইমধ্যে বরিশাল ও নরসিংদীর দু’জন সংস্কারপন্থী নেতার বিরুদ্ধে ক্ষমতাসীন দলের পার্টি অফিসে নিয়মিত যাতায়াতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। রাতের আঁধারে তারা বিরোধী দলের পার্টি অফিসে গিয়ে বিএনপির তথ্য পাচার করছেন বলে সন্দেহ করছে বিএনপির হাইকমান্ড।

ধারণা করা হচ্ছে, সংস্কারপন্থী নেতা জহির উদ্দিন স্বপন ও সরদার সাখাওয়াত হোসেন বকুল দলের গোপন তথ্যগুলো ক্ষমতাসীনদের কাছে পাচার করে দিচ্ছেন বলেও বিএনপির মধ্যে গুঞ্জন উঠেছে। এছাড়া দলের কাছে খবর রয়েছে যে, এখনো বেশ কয়েকজন নেতা দলের ভেতর বিভেদ-অনৈক্য সৃষ্টি করার জন্য কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

অন্য একটি সূত্র জানায়, মনোনয়নের প্রত্যাশায় যেসব সংস্কারপন্থী নেতা বিএনপিতে ফিরেছেন তাদের অনেকেই আবার যুক্তফ্রন্ট নেতা বিকল্পধারার অধ্যাপক বদরুদ্দোজা চৌধুরীর সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন। আর সেসব নেতাদের পক্ষে অনুঘটকের কাজ করছেন সদ্য বিকল্পধারায় যোগ দেওয়া সফল কূটনীতিক শমসের মবিন চৌধুরী। ধারণা করা হচ্ছে, বিএনপির কাছ থেকে উপযুক্ত সুবিধা আদায় করতে না পারলে শেষ পর্যন্ত তারা বিকল্পধারায় যোগ দিতে পারেন। বিষয়টি নিয়ে বিএনপি কিছুটা বিব্রত বলেও সূত্রটি নিশ্চিত করেছে।সুত্র: banglanewspost


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com