মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৬:০৪ পূর্বাহ্ন

ময়মনসিংহে মনোনয়ন না পেয়ে জাতীয় পার্টির কার্যালয় ভাঙচুর

নিজস্ব প্রতিবেদক : ময়মনসিংহ-৮ ঈশ্বরগঞ্জ আসনে আওয়াম লীগের মনোনয়ন না পেয়ে জাতীয় পার্টির (জাপা) কার্যালয় ভাঙচুর করেছে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুছ ছাত্তারের সমর্থকরা। রোববার রাত ৮টার দিকে ওই হামলা চালানো হয়। এ সময় তারা তিনটি মোটরসাইকেল ও অফিসের আসবাবপত্র ভাঙচুর করে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল ছুড়েছে পুলিশ। ওই ঘটনায় জাতীয় পার্টির ৩/৪জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে তাদের দলীয় একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

জানা যায়, ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে মহাজোটের অন্যতম শরীকদল আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন বঞ্চিত হওয়ার শঙ্কায় রোববার দুপুর থেকেই ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করে আব্দুছ ছাত্তারের সমর্থকরা।

রোববার দুপুর ১২টা থেকে বিকেল সোয়া ৩টা পর্যন্ত উপজেলা সদরের সবচেয়ে ব্যস্ততম স্থান মুক্তিযোদ্ধা চৌরাস্তা মোড়ে ‘নৌকা সমর্থক গোষ্ঠী’র ব্যানারে ওই বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা ওই রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ থাকে। এতে বিপাকে পড়েন ময়মনসিংহ ও কিশোরগঞ্জগামী যাত্রীরা।

ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কে দুপুর ১২টায় হাতে কাঠের তৈরি বৈঠা ও মাথায় কাপনের কাপড় বেঁধে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে থাকেন নেতাকর্মীরা। বিকেল সোয়া ৩টায় ময়মনসিংহ জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম) এস এ নেওয়াজী ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গৌরীপুর সার্কেল) সাখের হোসেন সিদ্দিকী ঘটনাস্থলে এসে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে কথা বলেন। এরপর তারা রাস্তা ছেড়ে চলে গেলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

সন্ধার পর হঠাৎ আব্দুছ ছাত্তারের সমর্থকরা পৌর সদরের পশুহাসপাতাল রোডে অবস্থিত জাতীয় পার্টির কার্যালয়ে অতর্কিত হামলা চালিয়ে ভাঙচুর শুরু করে। এ সময় জাতীয় পার্টির কার্যালয় লক্ষ্য করে বেশ কয়েকটি গুলি ও ককটেল ছুঁড়ে। কার্যালয় থেকে কারও সাড়া না পেয়ে কার্যালয়ের সামনে থাকা দু’টি মোটরসাইেকল ও পাশের বাসায় থাকা আরেকটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে। ওই সময় কার্যালয় ভিতরে প্রবেশ করে আসবাবপত্র ভাঙচুর করে। পরে তারা জাপা সংসদ সদস্য ফকরুল ইমামের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে দিতে মুক্তিযোদ্ধা মোড় এলাকায় এসে আরো কয়েকটি ককটেল ছুঁড়ে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ তিন রাউন্ড রাবার বুলেট ও এক রাউন্ড টিয়ারশেল ছুঁড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

এ বিষয়ে ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহমেদ কবির হোসেন জানান, উত্তপ্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৩ রাউন্ড রাবার বুলেট ও এক রাউন্ড টিয়ারশেল ছুড়া হয়েছে। পরিস্থিতি বর্তমানে স্বাভাবিক। পুলিশ এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ১৫ জনকে আটক করেছে। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি মোকাবেলায় পৌর সদরের বিভিন্ন পয়েন্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ঈশ্বরগঞ্জ পৌর সদরে উত্তেজনা বিরাজ করছে।


©2014 - 2018. RajshahiNews24.Com . All rights reserved.
Design & Developed BY ThemesBazar.Com