০১ অক্টোবর ২০২২, শনিবার, ০৫:৪৩:২০ পূর্বাহ্ন
'শিক্ষক বাতায়নে' সেরা কনটেন্ট নির্মাতা হয়েছেন পুঠিয়ার স্কুল শিক্ষিকা রত্না খাতুন
  • আপডেট করা হয়েছে : ২০-০৭-২০২২
'শিক্ষক বাতায়নে' সেরা কনটেন্ট নির্মাতা হয়েছেন পুঠিয়ার স্কুল শিক্ষিকা রত্না খাতুন

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় কর্তৃক এটুআই প্রকল্পের অধীনে পরিচালিত শিক্ষা বিভাগের জনপ্রিয় ওয়েবপোর্টাল ও ডিজিটাল শিক্ষাদান পদ্ধতির অন্যতম প্লাটফর্ম 'শিক্ষক বাতায়নে' সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা নির্বাচিত হয়েছেন রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার স্কুল শিক্ষিকা রত্না খাতুন। এটুআই (অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন) কর্তৃক পরিচালিত পোর্টালের এ বছরের ১৫ জুলাই ২য় পাক্ষিকে 'সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা' ক্যাটাগরিতে কৃতিত্বের স্বীকৃতি স্বরূপ রত্না খাতুনকে দেশ সেরার সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। 

শিক্ষিকা রত্না খাতুন পুঠিয়া উপজেলার ধাদাশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা। তাঁর বাড়ি একই উপজেলার তাঁড়াশ গ্রামে। 

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, দেশের সর্বস্তরের শিক্ষকদের জন্য জনপ্রিয় ওয়েব পোর্টাল ‘শিক্ষক বাতায়ন’ সরকারের এটুআই বিভাগের তত্ত্বাবধানে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নে এই ওয়েব 

পোর্টাল শিক্ষার্থীদের ডিজিটাল পাঠদান পদ্ধতির অন্যতম প্ল্যাটফর্ম। শিক্ষকরা মানসম্মত কনটেন্ট তৈরি করে এখানে আপলোড করেন। 

শিক্ষিকা রত্না খাতুন সেরা কন্টেন্ট নির্মাতার স্বীকৃতি পাওয়ায় প্রশংসা ভাসছেন। পাশাপাশি তাঁর বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরাও আনন্দিত হয়েছেন। নিজের প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করতে গিয়ে শিক্ষিকা রত্না খাতুন বলেন, 

কবিতা লিখিনি কোন দিন আমি, আমি নইতো কোন কবি, অনেকের মাঝে কবিত্ব দেখেছি, দেখেছি কবিদের ছবি।

কিছু কথা আজ বলিতে চাহি আনাড়ী কবিতার ছলে, জানি না কেমন হবে, ভালো নাকি-ভেসে যাবে নদীর জলে? কত জল গড়িয়েছে গংগায়, কত দিন গেছে কালের গহ্বরে, অপেক্ষার ক্ষণ হয়নি শেষ, এ মনটা কাঁদিছে বারে বারে। কত আঁধার পেরিয়ে যামিনী হয়েছে ভোর- তবু পূরণ হয়নি আশা, হতাশার পাহাড় জমেছে বুকে- দুঃখ শুধুই হেথায় বেঁধেছে বাসা। কত যে আশা বিফল হয়েছে বাতায়ন পানে চাহি, ধুঁক ধুঁক করি কাঁপিছে হৃদয় পরান ভরে নাহি। তবু ছাড়িনিকো আশা, মনে গেঁথেছি কঠিন শপথের মালা, অপেক্ষায় রবো-দেখি কবে আসে সেরা হওয়ার পালা। অবশেষে ১৫ জুলাই ২০২২- ধরা দিলো সেই শুভক্ষণ, সব কষ্ট শেষে সেরা হইলাম, আত্নহারায় আবেগে ভরিলো মন। শুকরিয়া জানাই মহান আল্লাহকে যিনি দিলেন আমায় এই সম্মান। দোয়া মাগি সবারে আমি যেন রাখিতে পারি তব মন। উল্লেখ্য, শিক্ষক বাতায়নে ডিজিটাল কনটেন্ট আপলোড করার পাশাপাশি করোনাকালীন সময়ে প্রায় সাত শতাধিক অনলাইন ক্লাস নিয়েছেন তিনি। শিক্ষক বাতায়নে সংযুক্ত করা আছে ৭০টি পাঠদানের কন্টেন্ট। আগামীতেও এই অর্জন ধরে রাখতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন রত্না খাতুন।

শেয়ার করুন