০৭ অক্টোবর ২০২২, শুক্রবার, ৬:১৯:৫২ অপরাহ্ন
রাজশাহীতে ডিজিটাল সিটিজেনশিপ ও অনলাইনে অধিকার চর্চার কর্মশালা
  • আপডেট করা হয়েছে : ৩০-০৭-২০২২
রাজশাহীতে ডিজিটাল সিটিজেনশিপ ও অনলাইনে অধিকার চর্চার কর্মশালা

রাজশাহীতে ডিজিটাল সিটিজেনশিপ ও অনলাইনে অধিকার চর্চার ওপর কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) অর্থায়নে ডিনেট এবং ফ্রেডরিক নওম্যান ফাউন্ডেশন ফর ফ্রিডম যৌথভাবে ‘Foster Responsible Digital Citizenship to Promote Freedom of Expression in Bangladesh’ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে।

বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মকে দায়িত্বশীল ডিজিটাল সিটিজেন হতে সহায়তা করা এবং তাঁদের মাঝে গঠনমূলকভাবে স্বাধীন মত প্রকাশের চেতনা গড়ে তোলার লক্ষ্য নিয়ে এই প্রকল্প কাজ করে যাচ্ছে। এর অংশ হিসেবে, (জুলাই ৩০) শনিবার রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি, রাজশাহীতে বিভিন্ন অংশীদারদের সাথে ‘Advocacy Dialogue: awareness and protection of digital citizenship and rights’ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এই কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন রাজশাহীর বিভিন্ন মহলের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ যারা সমাজে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। কর্মশালাটি পরিচালনা করার দায়িত্ব পালন করেন ডিনেট’এর নির্বাহী পরিচালক এম শাহাদাৎ হোসেন। কর্মশালাতে আরও বক্তব্য রাখেন ফ্রেডরিক নওম্যান ফাউন্ডেশন ফর ফ্রিডম থেকে উলফগ্যাং হেইঞ্জ এবং ডেলিগেশন অফ দি ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন টু বাংলাদেশের তাইফ হোসেন রকি। কর্মশালাটিতে সঞ্চালকের ভূমিকা পালন করেন ডিনেট’এর পক্ষ থেকে আসিফ আহমেদ তন্ময়।

সভায় উপস্থিত সকলের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হিসেবে ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য সুলতান-উল-ইসলাম টিপু ও সিন্ডিকেট সদস্য সাদিকুল ইসলাম, সাইবার ক্রাইম ট্রাইবুনালের ইসমত আরা, রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের আকরামুল হক, প্রথম আলোর আবুল কালাম আজাদ, ভলিয়েন্টিয়ার অব বাংলাদেশের জাহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

কর্মশালাতে এই প্রকল্পের অধীনে করা অ্যাডভোকেসি ব্রিফটি সকলের সামনে তুলে ধরেন অ্যাডভোকেট মোঃ সাইমুম রেজা তালুকদার। এই অ্যাডভোকেসি ব্রিফের আলোকে শিক্ষার্থীদের ইন্টারনেট সচেতনতা, ইন্টারনেটে সুরক্ষা, দায়িত্বশীলতার সাথে স্বাধীন মত প্রকাশ, ডিজিটাল আইন, ডিজিটাল অপরাধ, অনলাইনে ব্যক্তি পরিচয়, মিথ্যাচার ও ভুল খবর প্রচার এবং এ সংক্রান্ত আরও অনেক বিষয়ে আলোচনা করা হয়। অধিবেশনে উপস্থিত সকলেই এই প্রকল্পের উদ্যোগের সহায়তায় ডিজিটাল দুনিয়ায় মুক্ত ও নিরাপদ বিচরণ নিশ্চিত করার জন্য বিভিন্ন কার্যকর ও বাস্তবমুখী পরামর্শ প্রদান করেন।

কর্মশালাতে এম শাহাদাৎ হোসেন বলেন- তরুণ-তরুণীদের ডিজিটাল দুনিয়ায় অধিকার চর্চার সুযোগ করে দিতে ও দেশ গড়ার কাজে অনলাইন দুনিয়াকে দায়িত্বশীলভাবে ব্যবহার করার দক্ষতা অর্জনের ব্যবস্থা করে দিতে সমাজের সকল স্তর থেকে কাজ করতে হবে। তবেই কেবল আমরা এই ডিজিটাল যুগে আমাদের দেশের জন্য একটি টেকসই ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করতে পারব।

এই কর্মশালার আলোচিত অ্যাডভোকেসি ব্রিফটি প্রকল্পের ওয়েবসাইট https://www.digitalcitizenbd.com/ থেকে ডাউনলোড করা যাবে। এর পাশাপাশি এই ওয়েবসাইটে আছে তরুণ সমাজবান্ধব বিভিন্ন উদ্যোগ যা থেকে শিক্ষার্থীরা ডিজিটাল সিটিজেনশিপ ও মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিয়ে বিভিন্ন শিক্ষণীয় বিষয় জানতে পারবেন এবং একটি গঠনমূলক আলোচনার মাধ্যমে বিশ্লেষণধর্মী চিন্তা চর্চার পদ্ধতি সম্পর্কে জানবেন। যা তাঁদের ডিজিটাল দুনিয়ায় বিচরণের ক্ষেত্রে আচরণগত পরিবর্তন এনে একজন গর্বিত ডিজিটাল নাগরিকে পরিণত হতে সহায়তা করবে।

শেয়ার করুন