০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, বুধবার, ০৪:০৪:৫৬ পূর্বাহ্ন
মিল্ক ভিটার দুধ ও দুগ্ধজাত পণ্যের দাম বাড়লো
  • আপডেট করা হয়েছে : ০২-০৬-২০২২
মিল্ক ভিটার দুধ ও দুগ্ধজাত পণ্যের দাম বাড়লো

তরল দুধ ও অন্য দুগ্ধজাত প্রায় সব ধরনের পণ্যের দাম বাড়িয়েছে সরকারি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ দুগ্ধ উৎপাদনকারী সমবায় ইউনিয়ন লিমিটেড-মিল্ক ভিটা। গতকাল বুধবার (১ জুন) বিশ্ব দুগ্ধ দিবস থেকে নতুন এ দাম কার্যকর হয়েছে।


বৃহস্পতিবার (২ জুন) মিল্ক ভিটার মহাব্যবস্থাপক (বিপণন) মইনুল হক চৌধুরী জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।


নতুন দাম অনুযায়ী, গ্রাহক পর্যায়ে প্রতি লিটার প্যাকেটজাত তরল দুধের দাম ৭৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৮০ টাকা করা হয়েছে। এছাড়া আধা লিটার প্রতি প্যাকেট দুধের দাম ৪০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৪৫ টাকা, ২৫০ মিলিলিটারের প্যাকেটের দাম ২২ টাকা থেকে ২৫ টাকা, ২০০ মিলিলিটারের প্যাকেট ১৭ টাকা ৫০ পয়সা থেকে ২০ টাকা এবং ২০০ মিলিলিটারের প্রতি প্যাকেট দুধের দাম ২১ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২৫ টাকা করা হয়েছে।


লাবাংয়ের ৫০০ মিলিলিটারের দাম ৫৮ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৬৫ টাকা করা হয়েছে। মাঠা ২০০ মিলিলিটারের দাম ২৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩০ টাকা। মাখন ২০০ গ্রামের প্যাকেট ২০৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২৩০ টাকা, ১০০ গ্রামের প্যাকেট ১০৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১২০ টাকা করা হয়েছে।



এছাড়া ৯০০ গ্রাম ঘিয়ের দাম ১ হাজার ২০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১ হাজার ৩২০ টাকা, এক কেজি মিষ্টি দইয়ের দাম ১৮৫ টাকা থেকে ২১০ এবং প্রতি কেজি টক দইয়ের দাম ১৫২ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১৭৫ টাকা করা হয়েছে।


আইসক্রিম লিটারে ২০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২৩৫ টাকা এবং চকোবার ৪৮ মিলিলিটার ২০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২৫ টাকা করা হয়েছে।


মিল্ক ভিটার মহাব্যবস্থাপক (বিপণন) মইনুল হক চৌধুরী জাগো নিউজকে বলেন, গত ১৩ মার্চ স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে মিল্ক ভিটার পণ্যের দাম বাড়ানোর সুপারিশ করা হয়। সম্প্রতি খামারি পর্যায়ে কাঁচা দুধের উৎপাদন মূল্য এবং দুধ উৎপাদনে বিভিন্ন কাঁচামাল ও প্যাকেজিং উৎপাদনের মূল্য বেড়েছে। বর্ধিত মূল্য সমন্বয় করতে মিল্ক ভিটা পণ্যের মূল্য পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে। জুন মাসের প্রথম দিন থেকে নতুন এ দাম কার্যকর হয়েছে।

শেয়ার করুন