০৫ অক্টোবর ২০২২, বুধবার, ০৯:২৭:১০ অপরাহ্ন
রাজশাহীতে টাকা চুরির অপবাদে ছাত্রকে পেটালেন শিক্ষক
  • আপডেট করা হয়েছে : ১৬-০৬-২০২২
রাজশাহীতে টাকা চুরির অপবাদে ছাত্রকে পেটালেন শিক্ষক

রাজশাহীর বাঘায় টাকা চুরির অপরাধে মাদ্রাসা ছাত্রকে পিটিয়েছেন এক শিক্ষক। মঙ্গলবার রাতে ছাত্র জুবাইর হোসেনকে পিটিয়ে আহত করা হয়। পরে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এই ঘটনায় ছাত্রের পিতা জিল্লুর রহমান বাদি হয়ে বুধবার বিকেলে বাঘা থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার মনিগ্রাম ইউনিয়নের তুলসিপুর (সোদপুর) গ্রামে আল কারীম হিফ্জুল কুরআন মাদ্রাসা ও ইসলামী কিন্ডার গার্ডেনের মক্তব শ্রেণির ছাত্র জুবাইর হোসেন (১১)।

গত বছরের ফেব্রুয়ারী মাসে তাকে ঐ মাদ্রাসায় ভর্তি করা হয়। তারপর থেকে সে নিয়মিত লেখাপড়া করে যাচ্ছে। তবে মঙ্গলবার মাদ্রাসার তহবিল থেকে টাকা চুরি হয়। এতে ঐ ছাত্রকে সন্দেহ করে তল্লাসি করা হলে তার কাছে ২২০ টাকা পাওয়া যায়। মাদ্রাসার শিক্ষক এই ঘটনায় ছাত্রকে বেত দিয়ে পিটিয়ে আটকে রাখে।

পরে বিষয়টি পরিবারের লোকজন জানতে পেরে বুধবার দুপুরে মাদ্রাসা থেকে আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রে ভর্তি করা করেন। ছাত্রের পিতা জিল্লুর রহমান বাদি হয়ে বুধবার বিকেলে মাদ্রাসার পরিচালক ও শিক্ষক মেজবা ওয়াদুদ শাহরিয়ার ডলারকে অভিযুক্ত করে বাঘা থানায় একটি অলিখিত ভিযোগ দায়ের করেন।

এ বিষয়ে ছাত্রের বাবা জিল্লুর রহমান বলেন, আমার ছেলে মনিগ্রাম প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ত। দীর্ঘদিন করোনার কারনে স্কুল বন্ধ থাকায় মাদ্রাসায় ভর্তি করি। আমার ছেলে একজন সৎ ও সহজ সরল। তাকে কোন কারণ ছাড়াই চুরির অপবাদ দিয়ে পিটিয়ে আটকে রাখে মাদ্রাসার শিক্ষক। পরে তাকে উদ্ধার করে মেডিকেলে ভর্তি করি।

এদিকে, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রে চিকিৎসাধীন ছেলের পাশে বসে মা শরিফা বেগম ছেলের অবস্থা দেখে শুধু কেদেই যাচ্ছেন। তিনি কোন কথা বলতে পারছিলনা। সাংবাদিক পরিচয়ে কথা ভলতে গেলে, তিনিএ ঘটনার বিচার দাবি করেন।

এ বিষয়ে তুলসিপুর (সোদপুর) গ্রামে আল কারীম হিফ্জুল কুরআন মাদ্রাসা ও ইসলামী কিন্ডার গার্ডেনের শিক্ষক মেজবা ওয়াদুদ শাহরিয়ার ডলার বলেন, মাদ্রসার পাশে সেন্টুর মুদি দোকানে এর আগে চুরি হয়। এতে সন্দেহ করা হয় ছাত্রকে। এছাড়া মাদ্রাসার ছাত্রদের মাঝে মধ্যে টাকা চুরি হয়। বিষয়টি নিয়ে ছাত্র জুবাইর হোসেনকে সন্দেহ করে তার ব্যাগ তল্লাসি করা হলে ২২০ টাকা পাওয়া যায়। তারপর তাকে শাসন করা হয়েছে।

বাঘা থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক তৈয়ব আলী বলেন, এ বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন