০৭ অক্টোবর ২০২২, শুক্রবার, ১১:৪৯:১৬ পূর্বাহ্ন
দুর্গাপুরে কোন বাধাই মানছে না অবৈধ পুকুর খননকারী'রা
  • আপডেট করা হয়েছে : ২৭-০৭-২০২২
দুর্গাপুরে কোন বাধাই মানছে না অবৈধ পুকুর খননকারী'রা

সরকারী নির্দেশ অমান্য করে রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার ২নং,  কিসমত গণকৈড় ইউনিয়নের সুজানগর ধামন বিলে চলছে ছয়টি এস্কেভেটর ভেকু মেশিন দিয়ে ৫০বিঘা ফসলি কৃষি জমিতে অবৈধভাবে পুকুর খননের কাজ। 


এই পুকুর খনন করছেন তাহেরপুরের মোঃ আশরাফ নামের এক ব্যক্তি। এসব অবৈধ পুকুর খনন করার কারণে কমে যাচ্ছে এলাকার কৃষি ফসলি জমি এতে বিপাকে পড়ছেন এলাকার কৃষক ও খেটে খাওয়া দিনমজুরে'রা এসব পুকুর খনন করার জন্য  বিলে হচ্ছে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি তলিয়ে যাচ্ছে হাজার হাজার কৃষি ও ফসলসহ ফসলি জমি। 


এবং এসব অবৈধ পুকুর খননের মাটি ট্রাক্টরের মাধ্যমে বিক্রি করা হচ্ছে বিভিন্ন ইটভাটায় সরকারি রাস্তা দিয়ে এসব মাটিবাহী ট্রাক্টর গাড়ি চলাফেরা করার জন্য নষ্ট হচ্ছে সরকারী লক্ষ লক্ষ টাকা ব্যয় করে তৈরি করা সরকারি রাস্তা এবং চলাফেরার অযোগ্য হয়ে উঠছে এসব রাস্তাঘাট। 


নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক কৃষক জানান, এবছর তুলনামূলক হারে দুর্গাপুর উপজেলার ২নং, কিসমত গনকৈড় ইউনিয়নে সব থেকে বেশি ফসলি জমিতে পুকুর খনন করা হয়েছে বলে জানান, তারা আরো বলেন, এইসব অসাধু পুকুর ব্যবসায়ীদের পুকুর খনন করতে সহযোগিতা করছেন ক্ষমতাশালী দলের অর্থলোভী স্থানীয় কিছু নেতাকর্মী'রা। 


এলাকার কৃষকদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটাই দাবি অবিলম্বে যেন এসব অবৈধ ভাবে পুকুর খনন বন্ধ করা হোক। এসব অবৈধ পুকুর খনন বন্ধ করা না হলে আমরা যারা কৃষি নির্ভরশীল পরিবার আছি তারা একদম বেকার হয়ে পড়বো এলাকার খেটে খাওয়া দিনমজুর কৃষক'রা। এই অবৈধ পুকুর খননের বিরুদ্ধে গত কয়েকদিন আগে দুর্গাপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শুভদেবনাথ, ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে এই অবৈধ পুকুর খনন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিলো। বন্ধ হওয়ার কিছুদিন পর থেকে আবারও রহস্যজনক ভাবে শুরু হয় ঐ পুকুর খনন কাজ। এবিষয়ে দুর্গাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোঃ সোহেল রানা জানান, অবৈধ পুকুর খননের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। দ্রুত এই পুকুর এবং পুকুর খননকারী বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন