২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, বৃহস্পতিবার, ০৯:১৩:২৯ অপরাহ্ন
রাজশাহীতে মেয়েকে ইভটিজিংয়ে বাধা দেওয়ায় বাবাকে মারধর!
  • আপডেট করা হয়েছে : ১৩-০৮-২০২২
রাজশাহীতে মেয়েকে ইভটিজিংয়ে বাধা দেওয়ায় বাবাকে মারধর!

রাজশাহী মহানগরীর ২৬ নং ওয়ার্ডের মেহেরচন্ডী এলাকার মহিলা কলেজের ছাত্রীকে বেশ কয়েকদিন ধরে ইভটিজিং করে আসছে একই এলাকার সামাদ মাস্টারের ছেলে প্রিন্স, ইউসুফ খানের ছেলে মিরাজ, আক্তারের ছেলে রবিন, মৃত ইন্তাজ আলীর ছেলে ফরহাদ, মোস্তফার ছেলে রায়হান, আলঙ্গীরের ছেলে শাকিল, মামুন, বেনজির, নিজামও আকের।

শুক্রবার (১২ আগষ্ট) রাত ৮ টার দিকে কলেজ ছাত্রী তার বাব-মাকে নিয়ে ভার্সিটি স্টেশনের ওই দিক দিয়ে বাসার দিকে ফেরার পথে ঘটনাটি ঘটেছে।

মেয়েকে ইভটিজিং এ বাধা প্রদান করায় ছাত্রীর বাবা নীল মাধব সাহাকে মারধর টাকা ছিনতাই ও সোনার চেন ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বর্তমানে নীল মাধব সাহা রামেক হাসপাতালে ৮ নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।

কলেজ ছাত্রী জানান, কয়েকদিন ধরে একই এলাকার কয়েকজন বখাটে ছেলে আমাকে রাস্তাঘাটসহ বিভিন্ন জায়গায় ইভটিজিং করে আসছেন। আমাকে ইভটিজিং এ বাধা দেওয়ায় বাবাকে মারধর করেন মায়ের গলা থেকে স্বর্ণের চেন ও নগক ২০ হাজার টাকা নিয়ে পালিয়ে যায় তারা। এ বিয়য়টি থানায় জানালেও এখন পর্যন্ত কোন মামলা করা হয়নি। তবে মেডিকেল থেকে ফিরে তিনি পদক্ষেপ নিবে বলে জানিয়েছেন।

কলেজ ছাত্রীর বাবা নীল মাধব সাহা জানান, আমার মেয়েকে তারা ইভটিজিং করলে আমি তাদের বাধা প্রদান করি। তারা ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে মারধর করে টাকা ও সোনার চেন নিয়ে পালিয়ে যায়। আমি বিষয়টি থানায় জানিয়ে এসেছি। মেডিকেল থেকে বাসায় যাওয়ার পথে থানায় মামলা করবে

শেয়ার করুন