৩০ জানুয়ারী ২০২৩, সোমবার, ০৩:১১:১০ অপরাহ্ন
সমাবেশের নামে সহিংসতা ছড়ালে ছাড় দেব না : কাটাখালীতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী
নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট করা হয়েছে : ০১-৬-২০২২
সমাবেশের নামে সহিংসতা ছড়ালে ছাড় দেব না : কাটাখালীতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সমাবেশের নামে সহিংসতা ছড়ালে ছাড় দেব না : কাটাখালীতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

রাজশাহীর কাটাখালীতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এমপি বলেছেন, ‘জামায়াত-শিবির ছাড়া বিএনপি আন্দোলন করতে পারে না। এখন তাদের নিয়ে সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্র করছে তারা। তারা নখদন্তহীন বাঘে পরিণত হয়েছে। সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ও সহিংসতা ছড়ালে ছেড়ে দেয়া হবে না। আওয়ামী লীগ বন্দুকের নলে ভর করে আসেনি। জনগণের ভোটেই নির্বাচিত হয়। তাই ভয় দেখানোর চেষ্টা করবেন না, আমরা ভেসে আসিনি’।


বৃহস্পতিবার বিকালে কাটাখালী পৌর আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের আয়োজনে বিএনপির মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।



তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ এ দেশের মাটি-মানুষের সংগঠন। এ দেশের মানুষের জন্য রাজনীতি করে আওয়ামী লীগ। আপনাদের মতো যুদ্ধাপরাধীদের নিয়ে আমরা রাজনীতি করি না। আমি বিশ্বাস করি জামায়াত-শিবির ছাড়া বিএনপির কোন নেতা-কর্মী তিনদিন আগে চিড়া-মুড়ি নিয়ে সমাবেশে জড়ো হবে না।



বিএনপির ১০ ডিসেম্বরের কর্মসূচি সম্পর্কে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, সংগঠনের নিবেদিত নেতাকর্মীরা স্বাধীনতার শত্রুদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়ে যাবে। আপনাদের মোকাবিলা করতে যে কোনো দিন, যে কোনো সময় আওয়ামী লীগ প্রস্তুত আছে। এরপর আমরাও সমাবেশ করবো এবং সেই সমাবেশে বিএনপির চেয়ে দ্বিগুণের বেশী জনগণ থাকবে।



তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকার কৃষককে ভূর্ত্তুকি দিয়ে যাচ্ছে। আর আপনারা সারের জন্য ২২ জনকে গুলি করে মেরেছেন। বিএনপির কোন নেতা ওই সমস্ত কৃষকের বাড়িতে যায় নাই এবং খোঁজ খবরও নেন নাই। বর্তমান সরকারের কার্যকরি পদক্ষেপের জন্য বৈশ্বিক মন্দার মধ্যেও ভাতের কষ্ট আমাদের নেই।


তিনি আরো বলেন বিএনপির আমলের রাজশাহীতে বাংলা ভাই, জঙ্গির কথা মানুষ ভুলে যায় নাই। বর্তমান সরকারের আমলে রাজশাহীর মানুষ প্রমাণ করেছে আমরা শান্তিপ্রিয় এবং উন্নয়নের পক্ষে। প্রেক্ষিতে বারবার নৌকা বিজয়ী হয়।


তিনি আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীর উদ্দেশ্যে বলেন, ছোট-খাটো মনোমানিন্য থাকতে পারে তবে দলের ও জনগণের বৃহত্তর স্বার্থে আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। বিএনপিকে মোকাবেলা করতে হবে। সামনের ১৪ মাস প্রতিটি ঘরে যেতে হবে। বলতে হবে উন্নয়নের কথা।


বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন বলেন, সারাদেশে আন্দোলন ও সমাবেশের নামে সহিংসতা করলে বিএনপি কে উপযুক্ত জবাব দেওয়া হবে। বিএনপি ১৪ সালে নির্বাচনী পরবর্তী সময়ে সারাদেশে যেভাবে জ্বালাও পোড়াও করেছিল ঠিক তেমনি ভাবে তারা এখন আবার দেশের পরিস্থিতি ঘোলাটে করার জন্য আবার নীল নকশা শুরু করেছে, কিন্তু বাংলাদেশের মানুষ এখন সচেতন। তিনি বলেন দেশের মানুষ উন্নয়ন চায়, দেশের মানুষ শান্তি চায়। দেশের মানুষ বিএনপি’র সহিংস রাজনীতি আর চায় না। আবারো আন্দোলনের নামে জ্বালাও পোড়াও চায় না। বিএনপি যদি পূর্বের ন্যায় দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির পায়তারা করে তাহলে তাদেরকে রাজনৈতিক ভাবেই মোকাবেলা করা হবে।


কাটাখালী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু সামার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জহুরুল আলম রিপনের পরিচালনায় অতিথি ছিলেন রাজশাহী আওয়ামী লীগ সহসভাপতি এ্যাড. জাকিরুল ইসলাম সান্টু, পবা উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও নওহাটা পৌর মেয়র হাফিজুর রহমান হাফিজ, কাটাখালী পৌর ভারপ্রাপ্ত মেয়র আনোয়ার সাদাত নান্নু, পবা উপজেলা আওয়ামী লীগ দপ্তর সম্পাদক আব্দুল মাননান, পবা উপজেলা যুবলীগ সভাপতি এমদাদুল হক, সাধারণ সম্পাদক তফিকুল ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি ফরিদুল ইসলাম রাজু, সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ানুল কারিম।


মিছিলে নেতৃত্ব দেন পারিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি সোহরাব আলী, সাধারণ সম্পাদক নবীবুর রহমান, হরিয়ান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক জেবর আলী, নওহাটা পৌর যুবলীগ আহবায়ক শেখ ফরিদ, কাটাখালী পৌর যুবলীগ আহবায়ক জনি ইসলাম, হরিয়ান ইউপি’র চেয়ারম্যান মফিদুল ইসলাম বাচ্চু, পারিলা ইউপি’র চেয়ারম্যান সঈদ আলী মুর্শেদ।


উপস্থিত ছিলেন পবা উপজেলা যুবলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক ইকবাল আহমেদ, কাটাখালী পৌর যুবলীগ যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল আওয়াল, মেরাজুল ইসলাম, নাসির উদ্দিন, আওয়ামী লীগ নেতা শফিকুল ইসলাম, রিয়াজুল ইসলাম প্রমুখ।

শেয়ার করুন