১৩ জুলাই ২০২৪, শনিবার, ১২:৪৪:৩৪ পূর্বাহ্ন
ডি ককের রেকর্ড সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশের সামনে রানপাহাড়
  • আপডেট করা হয়েছে : ২৪-১০-২০২৩
ডি ককের রেকর্ড সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশের সামনে রানপাহাড়

অষ্টম ওভার শেষ হওয়ার আগেই ফিরে গেলেন দক্ষিণ আফ্রিকার টপ অর্ডারের দুই ব্যাটার, শুরুতেই সাফল্য বাংলাদেশের। শুরুর সাফল্য ম্লান হতে বেশি সময় লাগেনি। কারণ, উইকেটে ছিলেন অভিজ্ঞ ওপেনার কুইন্টন ডি কক। নিজের শেষ বিশ্বকাপকে স্মরণীয় করে রাখতে বাংলাদেশের বিপক্ষেও সেঞ্চুরি প্রোটিয়া উইকেটরক্ষক-ব্যাটারের। তাঁর রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরিতে বড় চ্যালেঞ্জের মুখে বাংলাদেশ। 


উইকেটরক্ষক-ব্যাটার হিসেবে এক বিশ্বকাপে চার সেঞ্চুরির রেকর্ড শ্রীলঙ্কার কুমার সাঙ্গাকারার। ২০১৫ বিশ্বকাপে টানা চার ম্যাচে সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন লঙ্কান কিংবদন্তি। টানা সেঞ্চুরি না হলেও এই বিশ্বকাপে তিন সেঞ্চুরি পেয়ে গেছেন কুইন্টন ডি কক, যার শেষটি আজ বাংলাদেশের বিপক্ষে মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে। তাঁর ১৭৪ রানের ইনিংসে ৫ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশকে ৩৮৩ রানের লক্ষ্য দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। জিততে হলে বিশ্বকাপের রেকর্ড ভাঙার সঙ্গে রানের হিমালয় বাইতে হবে বাংলাদেশকে। 


রানের সংখ্যাটা বড় হলেও অসম্ভব নয় বাংলাদেশের জন্য। ২০১৯ বিশ্বকাপেই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৩৩০ করেছিলেন সাকিব আল হাসানরা। যদিও সেবার প্রথমে ব্যাট করেছিল বাংলাদেশ। বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ ৩২১ রান তাড়া করে জেতার রেকর্ড আছে বাংলাদেশের। সাকিব ও লিটন দাসের ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে সেবার ৪১ ওভারের আগেই ম্যাচ জিতেছিল বাংলাদেশ। আজ জিততে হলে এই দুই ব্যাটারের দিকেও তাকিয়ে থাকতে হবে বাংলাদেশি সমর্থকদের। 


চোটের কারণে ভার‍ত ম্যাচ না খেলা বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আজ হেরেছেন টসে। বোলিংয়ের শুরুটা বাংলাদেশের ছিল দুর্দান্ত। ষষ্ঠ ওভারের প্রথম বলে শরীফুল ইসলামের বলে লাইন মিস করে পরিষ্কার বোল্ড আগের ম্যাচে ৮৫ করা ওপেনার রিজা হেন্ডরিক্স। প্রোটিয়া ওপেনার এই ম্যাচে রান করলেন মাত্র ১২। পরের ওভারে আরেক বিপজ্জনক ব্যাটার রাসি ফন ডার ডুসেনকে মাত্র ১ রানে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেললেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ৩৬ রানে দুই ব্যাটারকে ফিরিয়ে প্রথম পাওয়ার প্লেতে এগিয়ে বাংলাদেশ। 


দ্রুত দুই উইকেট হারালেও রানরেটকে কখনোই পাঁচের নিচে নামতে দেননি ডি কক। তাঁকে যোগ্য সঙ্গ দিলেন এই বিশ্বকাপে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা এইডেন মার্করাম। তৃতীয় উইকেট জুটিতে ডি কক-মার্করাম রান তুললেন ১৩৬ বলে ১৩১। এবারের বিশ্বকাপে নিজের তৃতীয় ফিফটি তুলে নিয়ে বোলারদের ওপর চড়াও হতে শুরু করেছিলেন মার্করাম। চড়াও হতে গিয়ে ৬৯ বলে ৬০ করে সাকিবের বলে লং অফে লিটনকে ক্যাচ দিলেন। ভাঙল জুটি। মার্করামকে হারিয়ে ডি কক সঙ্গী বানালেন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আগের ম্যাচে সেঞ্চুরি পাওয়া হেনরিখ ক্লাসেনকে। 


ক্লাসেনকে অপর প্রান্তে রেখেই বিশ্বকাপে নিজের তৃতীয় সেঞ্চুরি তুলে নেন ডি কক। ৪৭ বলে ফিফটি করেছিলেন প্রোটিয়া ওপেনার। সেঞ্চুরি পেলেন ১০১ বলে। সেঞ্চুরি করেই দেশের হয়ে অনন্য রেকর্ড গড়লেন ডি কক, প্রথম দক্ষিণ আফ্রিকান হিসেবে এক বিশ্বকাপে করলেন তিন সেঞ্চুরির রেকর্ড। উইকেটরক্ষক ব্যাটার হিসেবে সাঙ্গাকারার চার সেঞ্চুরি থেকে এক সেঞ্চুরি দূরে দাঁড়িয়ে তিনি। মার্ক ওয়াহ, সৌরভ গাঙ্গুলী, কুমারা সাঙ্গাকারা, রোহিত শর্মা ও ডেভিড ওয়ার্নারের সঙ্গে এক বিশ্বকাপে তিন সেঞ্চুরি পাওয়া ব্যাটারদের অভিজাত ক্লাবেও জায়গা করে নিলেন। 


সেঞ্চুরির পর আরও হাত খুলতে শুরু করলেন ডি কক। ছুঁয়ে গেলেন দেড় শ রানের মাইলফলকও। ১৪০ বলে ১৫ চার ও ৭ ছক্কায় ১৭৪ রানের দানবীয় ইনিংস খেলে অবশেষ থামলেন ডি কক। হাসান মাহমুদের ফুলটসে বাউন্ডারিতে ক্যাচ দিলেন নাসুম আহমেদকে। ফেরার আগে ক্লাসেনের সঙ্গে ৮৭ বলে ১৪২ রানের জুটিতে বাংলাদেশের কাঁধে চাপিয়ে গেলেন রানের বোঝা। 


ডি কক থাকতেই ঝড় শুরু করেছিলেন ক্লাসেন, ৩৪ বলে তুলে নেন ফিফটি। ডি কক ফেরার পর ঝড়ের গতি আরও বাড়ান ক্লাসেন, হাতছানি ছিল বিশ্বকাপে দ্রুততম সেঞ্চুরি করারও। ৪৯ বলে ৯০ করে হাসান মাহমুদের বলে অবশেষে থামেন ক্লাসেন। শুধু ছক্কাই মেরেছেন ৮টি, চার মাত্র ২টি! ক্লাসেন ফেরার পর ১৫ বলে ৩৪ রান করে বাংলাদেশের কাজ আরও কঠিন করে তোলেন ডেভিড মিলার।


শেয়ার করুন