১২ জুলাই ২০২৪, শুক্রবার, ১১:২৯:০৯ অপরাহ্ন
ইউরোয় নিজের শেষ ম্যাচটা খেলে ফেললেন রোনাল্ডো
  • আপডেট করা হয়েছে : ০৬-০৭-২০২৪
ইউরোয় নিজের শেষ ম্যাচটা খেলে ফেললেন রোনাল্ডো

ইউরোর কোয়ার্টার ফাইনাল। মুখোমুখি ফ্রান্স-পর্তুগাল। মঞ্চ প্রস্তুত এমবাপ্পে ও রোনাল্ডোর কাউকে বিদায় জানাতে। কিন্তু বিদায় নিতে কে চায় বলুন। রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক ও বর্তমানের লড়াইটা চলল ১২০ মিনিট। তবে গোল পেল না কোনো দলই। শেষটাই ভাগ্য নির্ধারণী টাইব্রেকারে গেল ম্যাচটা। যেখানে সবশেষ ম্যাচে রোনাল্ডোদের টেনে তুললেও এ ম্যাচে আর পারলেন না দিয়েগো কস্তা। ৫-৩ গোলে ফ্রান্সের বিপক্ষে হারতে হতো পর্তুগালকে। যেই হারে থামল পর্তুগালের ইউরো যাত্রা। এমবাপ্পের ফ্রান্স উঠে গেল সেমিফাইনালে।

পর্তুগালের এমন বিদায়ে শেষ হলো রোনাল্ডোর ইউরো অধ্যায়। ইউরো শুরুর আগেই রোনালদো জানিয়েছিলেন এটাই তার ক্যারিয়ারের শেষ। সে হিসেবে ফ্রান্সের বিপক্ষে হারটাই হয়ে থাকল রোনাল্ডোর শেষ ইউরো ম্যাচ। 

২০০৪ সাল থেকে ইউরোর এখন পর্যন্ত প্রতিটি আসরেই খেলেছেন রোনালদো। ইউরোর ইতিহাসে যা সবচেয়ে বেশিবার। এখন পর্যন্ত রোনাল্ডো খেলেছেন মোট ৬টি ইউরো। এরমধ্যে ২০১৬ সালে পর্তুগালকে চ্যাম্পিয়নও করেছেন তিনি। তবে এখানেই এবার থামছেন পর্তুগিজ মহাতারকা।

নিজের বিদায় নিয়ে রোনাল্ডো আগেই বলেছেন, ‘নিঃসন্দেহে এটি আমার জন্য শেষ ইউরো। তবে আমি এটা নিয়ে আবেগপ্রবণ নই। ফুটবলে যা কিছু আছে, আমি খেলার জন্য যে উৎসাহ, ভক্তদের মধ্যে যে উদ্দীপনা দেখি তা আমাকে মুগ্ধ করে। তাছাড়া এখানে আমার পরিবার থাকে, মানুষের আবেগ জড়িয়ে কাজেই এটা কেনো বিষয় নয়। কেননা, ফুটবল দুনিয়ার বাইরে আমার আর কি বা করার আছে?

সেমিতে উঠার ম্যাচে যতটা লড়াই আসা করা হয়। দু’দলের ফুটবলারদের মধ্যে তা চোখে পড়েনি। প্রথমার্ধে তো গোলের তেমন কোনো সুযোগই তৈরি করতে পারেনি পর্তুগাল ও ফ্রান্স। তবে বলের দখলটা নিজেদের কাছেই রেখেছিল পর্তুগাল। তবে দিনশেষে ফুটবল তো কেবল বল দখলের খেলা নয় গোলের। সেটাই পারেনি দলটি।

শেয়ার করুন