৬ অগাস্ট ২০২২, শুক্রবার, ০৬:১৭:২৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
পরীমণির সন্তানের ছবি ও নাম প্রকাশ প্রেমের টানে ছুটে এলেন অস্ট্রিয়ান প্রকৌশলী গরু পাচার মামলায় পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডল গ্রেপ্তার আরব নারীদের নিয়ে মানহানিকর প্রতিবেদন, দ্য ইকোনোমিস্টের বিরুদ্ধে মামলা সেনানিবাসে তৃতীয় জানাজা শেষে লে. কর্নেল ইসমাইলকে বনানীতে দাফন সুইস ব্যাংকের তথ্য চাওয়া নিয়ে রাষ্ট্রদূত মিথ্যা বলেছেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ব্যক্তিগত সফরে শুক্রবার টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জ্বালানি তেলের দাম যুক্তরাষ্ট্রে পাঁচ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন বেটউইনারের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করলেন সাকিব রাবির কেন্দ্রীয় মন্দির সভাপতির বিরুদ্ধে বর্ণবাদী আচরণের অভিযোগ
রাজশাহীতে নতুন জাতের আমের সন্ধান
  • আপডেট করা হয়েছে : ২৭-০৫-২০২২
রাজশাহীতে নতুন জাতের আমের সন্ধান

রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় এবার নতুন জাতের এক আমের সন্ধান মিলেছে। উৎপত্তিস্থল বাঘা ও জেলা রাজশাহীর সঙ্গে মিলিয়ে কৃষি বিভাগ এই আমের নামকরণ করতে চাইছে ‘বাঘাশাহী’ হিসেবে। ইতিমধ্যে নাম নিবন্ধনের প্রক্রিয়া শুরু করেছে স্থানীয় কৃষি বিভাগ।

রাজশাহী জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মোজদার হোসেনের দাবি, দেশে উন্নত জাতের যেসব আম এখন আছে, তার চেয়েও মিষ্টতা বেশি বাঘাশাহীর। আছে নিজস্ব সুঘ্রাণও। মোজদার হোসেন এই আম সংগ্রহ করে গতকাল বুধবার রাজশাহীর পুলিশ সুপার (এসপি) এ বি এম মাসুদ হোসেনকে উপহার দিয়েছেন। এসপি এই আমের প্রশংসা করেছেন।

বাঘা পৌরসভার মেয়র আবদুর রাজ্জাকের পারিবারিক বাগানে সম্প্রতি এই আমগাছের সন্ধান পেয়েছে কৃষি বিভাগ। পৌরসভার বলিহার মহল্লায় মেয়রের বাড়ি। সেখানেই চারটি গাছ আছে বাঘাশাহীর। গাছগুলোর বয়স ৩০ থেকে ৪০ বছর। মেয়রের পরিবার এত দিন গুটি জাত হিসেবেই এই আম খেয়ে আসছিল।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. শফিউল্লাহ সুলতান বলেন, আমটি আম্রপালি জাতের মতো দেখতে। কিন্তু একটি ক্ষীরশাপাতি আমের মতো সুমিষ্ট। নিজস্ব আলাদা ঘ্রাণও আছে। আমটিতে কোনো আঁশ নেই। আঁটিও ছোট। এটিকে ‘বাঘাশাহী’ নামে নতুন জাত হিসেবে নিবন্ধনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

বাঘা পৌরসভার মেয়র আবদুর রাজ্জাক জানান, গাছগুলো তাঁর বাবা লাগিয়েছিলেন। এলাকার আর কোথাও এ রকম আমগাছ নেই। এই আম তাঁরা গুটিজাত হিসেবেই জানতেন। আম খুব সুস্বাদু বলে তাঁরা গাছ কাটেননি। কৃষি বিভাগ এত দিনে খোঁজ পেয়ে জাতটির সম্প্রসারণ করতে চাইছে।

রাজশাহী জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মোজদার হোসেন বলেন, বাঘায় আমের শত শত জাত আছে। এগুলো স্থানীয়ভাবে গুটি আম হিসেবেই পরিচিত। এগুলোর মধ্যেই পাওয়া গেল নতুন আমটি। বাঘার মেয়রের বাড়িতে পাওয়া আমটি স্বাদে-গন্ধে অনন্য। আগে আগে পাকে বলে বাজারে এর চাহিদাও থাকবে। তাই এটিকে জাত হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এই আম তাঁরা ‘বাঘাশাহী’ নামে সারা দেশে ছড়িয়ে দিতে চান। সূত্র- আজকের পত্রিকা

শেয়ার করুন