২১ মে ২০২৪, মঙ্গলবার, ০৩:০৭:০৮ পূর্বাহ্ন
পিস্তল হাতে মিছিলের ভিডিও ভাইরাল, যা বললেন এমপি
  • আপডেট করা হয়েছে : ২৩-০৫-২০২৩
পিস্তল হাতে মিছিলের ভিডিও ভাইরাল, যা বললেন এমপি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে সারা দেশের মতো বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে বাঁশখালীতে। মিছিল চলাকালে সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীকে পিস্তল হাতে দেখা গেছে। এ ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সোমবার (২২ মে) বিকেলে বাঁশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয় থেকে শুরু হয়ে বিক্ষোভ মিছিলটি উপজেলার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে এবং উপজেলা পরিষদের গেটে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

বিক্ষোভ মিছিলে স্থানীয় সংসদ সদস্য ছাড়াও অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- বাঁশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আবদুল গফুর, সাবেক দপ্তর সম্পাদক শ্যামল কান্তি দাশ, পৌর মেয়র এডভোকেট তোফায়েল বিন হোসাইন, চেয়ারম্যান শাহাদাত আলম, মুজিবুল হক চৌধুরী, কফিল উদ্দিন, তাজুল ইসলাম, ইবনে আমিন, নীল কণ্ঠ দাশ, উসমান গনি, আ ন ম ফরহাদুল আলম, হামিদ উল্লাহ, মৌলানা আখতার হোসেন প্রমুখ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন নেতাকর্মী বলেন, আগামী নির্বাচনে চট্টগ্রাম-১৬ (বাঁশখালী) আসন থেকে নৌকার নমিনেশন পাওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণের লক্ষ্যে এ ধরনের কর্মকাণ্ড করেছেন সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী।  

এ বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আবদুল গফুর  বলেন,  প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে উপজেলা আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ মিছিলে নিজের লাইসেন্স করা অস্ত্র নিয়ে অংশ নিয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী এমপি। তবে এটাকে আমি অযৌক্তিক মনে করি না। যেখানে প্রকাশ্যে প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে বিএনপি নেতারা, সেখানে এমপি  নিজের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে অস্ত্র হাতে নিয়েছে- এখানে দোষের কিছু নেই।

মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী এমপি এ বিষয়ে বলেন, প্রকাশ্য জনসভায় যদি বিএনপি নেতা বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনাকে কবরে পাঠানোর মতো  বক্তব্য দিতে পারেন। দেশের প্রধানমন্ত্রীকে হুমকি দিতে পারেন। তবে আমি বৈধ অস্ত্র ব্যবহার করে অগ্নি সন্ত্রাসকারী বাহিনীকে প্রতিরোধ করতে মিছিলে অংশ নিলে ক্ষতি কি?  

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে নিজের পছন্দের চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে কাজ না করায় উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাহেদকে মারধর করেছিলেন স্থানীয় এমপি মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী। ঘটনার পর এমপির বিরুদ্ধে মামলা করেন নির্বাচন কর্মকর্তা।    

২০১৯ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক  সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে এমপির অশ্লীল গালাগালির একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। 

এ ছাড়া ২০২০ সালের ২৭ জুলাই বাঁশখালীর বীর মুক্তিযোদ্ধা ডাক্তার আলী আশরাফের মৃত্যুর পর- বাঁশখালীতে  কোনো মুক্তিযোদ্ধা ছিল না-  এমন একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে মোস্তাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় মানববন্ধন ও সমাবেশ হয়।

শেয়ার করুন