১৯ অগাস্ট ২০২২, শুক্রবার, ৬:১৫:২১ অপরাহ্ন
ইট পড়ে প্রাণহানির পর মেট্রোরেলে নিরাপত্তা বেষ্টনী
  • আপডেট করা হয়েছে : ০৩-০৬-২০২২
ইট পড়ে প্রাণহানির পর মেট্রোরেলে নিরাপত্তা বেষ্টনী

রাজধানীর মিরপুরে মেট্রোরেলের ওয়াকওয়ের নির্মাণাধীন দেওয়ালের ইট পড়ে একজনের প্রাণহানির পর নিরাপত্তা বেষ্টনী দেওয়া হয়েছে। গত সোমবার সকাল সাড়ে দশটায় মিরপুর সাড়ে এগারোতে ইসলামি ব্যাংক হাসপাতালের সামনে (মেট্রোরেলের ৫ নাম্বার স্টেশন ২০৩ নাম্বার পিলার) ইট পড়ে নিহত হন সোহেল তালুকদার নামের এক ব্যক্তি। সোহেল  মিরপুর ১০ নম্বরের একটি স্বর্ণের দোকানের কর্মচারী ছিলেন। 


এদিকে সোহেল নিহতের পর এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে না ঘটে সে জন্য ওই স্থানে নিরাপত্তা বেষ্টনী দিয়েছে মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ। অথচ নিয়ম অনুযায়ী, নিরাপত্তা বেষ্টনী দেওয়ার কথা ছিল স্টেশনের কাজ শুরু হওয়ার আগে।


শুক্রবার সরজমিন দেখা যায়, ইসলামি ব্যাংক হাসপাতালের প্রবেশ পথের গেটের (মেট্রোরেলের ৫ নাম্বার স্টেশন) উত্তর ও দক্ষিণ পাশে নিরাপত্তা বেষ্টনী দেওয়া হয়েছে। উপরে  টিন ও দুই পাশে লোহার পাইপ দিয়ে দীর্ঘ পথজুড়ে এই বেষ্টনী বানানো হয়েছে।  নিরাপত্তা বেষ্টনী দিয়ে মানুষ নির্বিঘ্নে চলাচল করছে।  হাসপাতাল ও নিরাপত্তা বেষ্টনী সংলগ্ন  টং দোকানগুলোতে মানুষ অবাধে যাতায়াত করছে। অথচ গত ৭ দিন আগেও এই স্থান দিয়ে মানুষ আতঙ্ক নিয়ে চলা ফেরা করত।  


স্থানীয় বাসিন্দা আলতাফ বলেন, আগে এই নিরাপত্তা বেষ্টনী দেওয়া হলে ওই দিনের ঘটনা ঘটত না। কর্তৃপক্ষের গাফলতির কারণে একটা নিরীহ মানুষের প্রাণ অকালে ঝড়ে গেল।  মানুষ এখন নির্বিঘ্নে চলাচল করছে। 


জানা গেছে, উত্তরা দিয়াবাড়ি থেকে মিরপুর আগারগাঁও পর্যন্ত মেট্রোরেলের ৯টি স্টেশন রয়েছে। বর্তমানে মেট্রোরেল স্টেশনের ভেতর ও বাইরে কাজ চলছে। কয়েকটি স্টেশনে নিরাপত্তা বেষ্টনী ছাড়াই কাজ চলছে। তবে ইট পড়ার ঘটনার পর যেসব স্টেশনে নিরাপত্তা বেষ্টনী দেওয়া হয়নি, সেখানে বেষ্টনী দেওয়া হচ্ছে।   


মেট্রোরেলের সিকিউরিটি অফিসার (৫ নাম্বার স্টেশন) লিটন বলেন, উত্তরা থেকে মিরপুর আগারগাঁও পর্যন্ত মেট্রোরেলের ৯টি স্টেশন রয়েছে। এর মধ্যে কয়েকটি স্টেশনে আগেই নিরাপত্তা বেষ্টনী দেওয়া হয়েছে। ওই দিনের দুর্ঘটনার পর যে কয়টি স্টেশনে নিরাপত্তা বেষ্টনী দেওয়া হয়নি, সেখানে বেষ্টনীর কাজ শুরু হয়ে এখন শেষের পথে। 


পল্লবী থানার ওসি পারভেজ ইসলাম বলেন, মেট্রোরেলের ইট পড়ে নিহতের ঘটনা একটি দুর্ঘটনা। এখানে কারো গাফলতি ছিল না।

শেয়ার করুন