০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, সোমবার, ০৯:৫৮:১১ পূর্বাহ্ন
মোহনপুরে এমপি আয়েনকে আসামি করে থানায় অভিযোগ
  • আপডেট করা হয়েছে : ২৮-১১-২০২২
মোহনপুরে এমপি আয়েনকে আসামি করে থানায় অভিযোগ

রাজশাহীর ৩- আসনের (পবা-মোহনপুর) সংসদ সদস্য (এমপি) আয়েন উদ্দিনকে আসামি করে থানায় অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। শনিবার (২৭ নভেম্বর) রাতের দিকে মোহনপুর উপজেলার ঘাসিগ্রাম ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য মোসা. শেখ হাবিবা (৩০) থানায় এই অভিযোগ দায়ের করেন।

মোহনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সেলিম বাদশা অভিযোগের বিষয়টি সিল্কসিটি নিউজ ডটকমকে নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবো।

অভিযুক্ত আসামিরা হলেন, মোহনপুর থানার বিভিন্ন এলাকার মো. একরামুল হক বিজয় এবং মো. সাজ্জাদ হোসেন, মোসা. ডলি বেগম, মোসা. ডলি আক্তার (উপজেলা মহিলা লীগের সভাপতি), মো. হুমায়ূন কবির, মো. জুয়েল রানা, মো. আয়েন উদ্দিন, মো. আব্দুস সালামসহ অজ্ঞাতনামা ১০-১৫ জন।

মোসা. শেখ হাবিবা এজাহারে জানান, গত ২৩ নভেম্বর দুপুর অনুমান ১টার দিকে রাজনৈতিক কারণে মো. আয়েন উদ্দিনের বিভিন্ন কুকর্ম আমি গণমাধ্যমে প্রকাশ করি। এ ঘটনা ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আসামিরা আমাকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে মোহনপুর উপজেলা চত্ত¦রে ঘিরে ধরেন। এসময় তারা গালিগালাজ করতে থাকেন এবং এমপি আয়েন উদ্দিন ও আসামি মো. আব্দুস সালাম মারতে হুকুম দিয়ে বলেন, ‘‘মার মাগীকে মেরে জীবনে শেষ করিয়া দে’’।

হুকুম পেয়ে আসামি মো. একরামুল হক বিজয় তার হাতে থাকা লোহার হাতুড়ি দিয়ে আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথায় আঘাত করেন। আমি মাটিতে পড়ে গেলে মো. ডলি বেগম আমার বুকে উঠে ওড়না দিয়ে গলা চেপে ধরে হত্যার চেষ্টা করেন। এছাড়া আসামি একরামুল হক বিজয় আমার শ্লীলতাহানি করেন। ডলি বেগম আমার কাছে থাকা ২০ হাজার টাকা ও ডলি আক্তার আমার মোবাইল ফোন এবং গলার এক ভরি স্বর্ণের চেন (৭০ হাজার) চুরি করেন। অজ্ঞাতনামা আসামীসহ অন্যরা আমাকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করেন।

অভিযোগের বিষয়ে এমপি আয়েন উদ্দিন বলেন, ওই নারী কিছু ব্যক্তির দ্বারা প্রভাবিত হয়ে আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। তার বিরুদ্ধে আমি মোহনপুর থানায় একটি জিডি (সাধারণ ডায়েরি) করেছি।

শেয়ার করুন