০৭ অক্টোবর ২০২২, শুক্রবার, ০১:০৭:২৮ অপরাহ্ন
প্রথম দিনে দুই উইকেটে উইন্ডিজের সংগ্রহ ৯৫ রান
  • আপডেট করা হয়েছে : ১৭-০৬-২০২২
প্রথম দিনে দুই উইকেটে উইন্ডিজের সংগ্রহ ৯৫ রান

কিভাবে ধৈয্য ধরে ঠাণ্ডা মাথায় টেস্ট খেলতে হয় তা চোখে আঙুল দিয়ে দিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেটাররা।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে অ্যান্টিগায় সিরিজের প্রথম টেস্টে মাত্র ৩২.৫ ওভারেই ১০৩ রানে গুড়িয়ে যায় বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস।

অন্যদিকে, প্রথম দিন উইন্ডিজ ৪৮ ওভারে দুই উইকেটে ৯৫ রান করেছে। প্রথম দিনশেষে মাত্র ৮ রানে পিছিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, অধিনায়ক ক্রেগ ব্রাফেট অপরাজিত ৪২ রানে।

প্রথম ইনিংসে সম্বল বেশ কম হলেও বাংলাদেশ বোলাররা নিয়ন্ত্রিত বোলিং করেন শুরু থেকেই। দ্বিতীয় সেশনে ১৫ ওভারে ওয়েস্ট ইন্ডিজ তোলে মাত্র ১৫ রান, ষষ্ঠ ওভারে গিয়ে প্রথম রানের দেখা পায় তারা, ১৪তম ওভারে ব্যাট থেকে আসে প্রথম বাউন্ডারি।

তবে অবিচ্ছিন্ন থেকেই চা-বিরতিতে যান দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ব্রাফেট ও জন ক্যাম্পবেল। যদিও চিত্রটা ভিন্ন হতে পারত সহজেই, শূন্য রানেই মুমিনুলের হাতে ব্রাফেট জীবন পাওয়াতে হয়নি সেটি। মোস্তাফিজুর রহমানের বলে ফ্লিক করে লেগ স্লিপের ফিল্ডারের ফাঁদে পা দিয়েছিলেন ব্রাফেট।
 
অবশেষে ২৬তম ওভারে দেখা মেলে প্রথম ব্রেকথ্রুর। মোস্তাফিজের ভেতরের দিকে ঢোকা বলে আগবাড়িয়ে ডিফেন্ড করেছিলেন ২৪ রান করা ক্যাম্পবেল, তবে ইনসাইড-এজের পর গড়িয়ে গিয়ে সেটি ভাঙে স্টাম্প। এর আগে মিরাজকে ছয়-চার মেরে একটু খোলস ছেড়ে বের হওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন ক্যাম্পবেল।

সুযোগ তৈরি হয়েছে এরপরও। ২৮তম ওভারে মোস্তাফিজের পরপর দুই বলে ক্যাচ তোলেন রেমন রিফার ও ব্রাফেট। দুবারই দারুণ চেষ্টা করেও ফল পাননি লিটন—প্রথম দফা দ্বিতীয় স্লিপ থেকে ডান দিকে ডাইভ দিয়েছিলেন, পরের বার স্কয়ার লেগে বাঁদিকে।

পরে ব্রাফেটের বিপক্ষে নেওয়া একটা কট-বিহাইন্ডের রিভিউও ব্যর্থ হয় সাকিবের বলে। অবশ্য কিছুক্ষণ পরই আসে দ্বিতীয় উইকেট। রিফারকে দারুণ সেট-আপে আউট করেন ইবাদত।

এর আগে দেড় সেশন ও ৩২.৫ ওভার ব্যাটিং করেই প্রথম ইনিংসে থামে বাংলাদেশ। অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ৫১ রান করলেও ইনিংসে দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেন আর মাত্র দুজন—তামিম ইকবাল (২৯) ও লিটন দাস (১২)।

১৬ রানের মধ্যে বাংলাদেশ হারায় মাহমুদুল হাসান, নাজমুল হোসেন ও মুমিনুল হককে। বিপর্যয়ের শুরুটা ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই। রোচের অফ স্টাম্পের বাইরের লেংথ বলে খোঁচা মেরে স্লিপে ক্যাচ দেন মাহমুদুল, পরের ওভারে এসে রোচ ফেরান নাজমুলকে। বাংলাদেশের দুই থেকে চার নম্বর ব্যাটসম্যানের কেউই রান করতে পারেননি—নিজেদের ইতিহাসে এমন ঘটনাও ঘটল এই প্রথম বার।

শেয়ার করুন