০৭ অক্টোবর ২০২২, শুক্রবার, ০১:০৬:১৫ অপরাহ্ন
রাজশাহীতে সন্ত্রাসী হামলায় জমি দখল, এলাকাছাড়া কৃষক পরিবার
  • আপডেট করা হয়েছে : ১০-০৮-২০২২
রাজশাহীতে সন্ত্রাসী হামলায় জমি দখল, এলাকাছাড়া কৃষক পরিবার

রাজশাহীতে একটি কৃষক পরিবারের উপর সন্ত্রাসী হামলা করে জায়গা-জমি দখল ও হত্যার উদ্দেম্যে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে এলাকা ছাড়া কারার অভিযোগ উঠেছে। থানায় মামলা করলেও তাদের অব্যহত হুমকির কারণে দীর্ঘদিন হতে প্রাণের ভয়ে নিজ বাড়ীতে যেতে না পারা ও জায়গা জমি নিজের দখলে নিতে না পেরে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভূক্তভোগী পরিবার।


বুধবার (১০ আগস্ট) বেলা ১১ টার দিকে রাজশাহী মহানগরীর একটি রেস্তোরায় সংবাদ সম্মেলন করেছেন পুঠিয়া উপজেলার ভাল্লকগাছি ইউনিয়নের রামকৃঞ্চ গ্রামের ভূক্তভোগী আকবর আলী ও তার পরিবার।


সংবাদ সম্মেলনে আকবর আলীর মেয়ে আয়েশা খাতুন লিখিত বক্তব্য পাঠ করে অভিযোগ করেন, দীর্ঘদিন থেকে ওই গ্রামে তারা বসবাস করছেন। একই গ্রামের ভূমিদস্যু ও চিহিৃত সন্ত্রাসী লায়েব উদ্দীন ও তার সহযোগী শাহীন, আনোয়ার হোসেন দলিল মাস্টার ও জাহাঙ্গীরসহ বেশ কিছু সহযোগী তাদের জমি দখলের জন্য জোর করছিলো। গত ২২ জুলাই বেলা ১১ টার দিকে জমির বিরোধে তাদের বাসায় হামলা চালায় সন্ত্রাসী লায়েব উদ্দীন ও তার সহযোগীরা।


সংবাদ সম্মেলনে তারা অভিযোগ করেন, সেদিন তাদের পরিকল্পিত ভাবে বাড়ীতে হামলা চালায়। এসময় তাদের পরিবারের কয়েকজনকে হত্যার উদ্দেশ্যে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে তাদের পুঠিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও রামেক হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা করায়। এর পর থেকেই তারা আর ওই গ্রামে ঢুকতে পারছে না। পুলিশের কাছে অভিযোগ করলে তারা মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করলেও তাদের ভয়ে এলাকায় ঢুকতে না পেরে পরিবারের সবাই পাশের গ্রামসহ আত্নীয়নের বাসায় আশ্রয় নিয়ে দিন যাপন করছেন।


ভূক্তভোগী আকবর আলী বলেন, আমিসহ আমার বড় ভাই শামসুল হকের দুই জায়গার ভিটা জমি ১৪ শতক ও পুকার ও বাগানের ২৩ শতক জমি তারা জোর পূর্বক বাড়ীতে হামলা করে দখলে নিয়েছে। আমার তিন মেয়েসহ আমরা অসহায় জীবন যাপন করছি। ছেলে সন্তান না থাকায় আরো অসহায় হয়ে পড়েছি।


তিনি আরো অভিযোগ করেন, সন্ত্রাসী লয়েব উদ্দিনসহ তার সহযোগিরা গত ১ বছর থেকে গ্রামে ঢুকতে দেয় না। একঘরা করে রেখেছে। এমনকি কেউ কথা বলতে আসলে বা মিশলে তাদের কে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করার হুমকি দেয়। আমরা এলাকায় গেলে মাইকিং করে তাড়ানোর কথা বলে। এই অবস্থায় ভূক্তভোগী পরিবার জীবন নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছেন।


সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, ভূক্তভোগী আকবরের স্ত্রী মাহমুদা বেগম, তার মেয়ে ফেরদৌসী বেগম ও সাদিয়া খাতুন ও তার ছেলে মাহবুর।


হামলার বিষয়ে লায়েব উদ্দীনের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তার ছেলে মিনহাজ উদ্দীন ফোন রিসিভ করে বলেন, তার পিতা একটি মামলায় জেল হাজতে আছেন। ভূক্তভোগী আকবর আলীর বাড়ীতে হামলা ও জমি দখলের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঈদগাহ জমির নিয়ে ঝামেলা চলছে। তাদের বাড়ীতে আমার বাবা হামলা করেনি। তারাই নিজেরা সন্ত্রাসী ভাড়া করে নিজেদের বাড়ীতে হামলা করে পালিয়ে আছেন বলে তিনি দাবি করেন।


এই বিষয়ে পুঠিয়া থানার ওসি সোহরাওয়ার্দী হোসেন বলেন, ভূক্তভোগী আকবার আলীর বাড়ী ঘরের উপর হামলার ঘটনা সত্য। ওই ঘটনায় মামলায় একজনকে গ্রেপ্তার করে জেলা হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকি আসামীরা জামিনে রয়েছে। মসজিদ, গোরস্থান ও ঈদগাহর জায়গা নিয়ে বিরোধ চলছে। এখন পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। ভূক্তভোগী পরিবার হয়তো নিজেরা ভয়ে আতঙ্কে আসছে না। ঘটনা যাইহোক তারা নিজেদের বাড়ীতে থাকার অধিকার রয়েছে। প্রয়োজনে তারা থানায় এসে সহযোগিতা চাইলে সেই কাজটিও করা হবে বলে জানান।

শেয়ার করুন